bangla news

নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও রাতে চলছে স্পিডবোট

ইমতিয়াজ আহমেদ, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৮-২৫ ৯:৪৬:০২ এএম
সন্ধ্যার পরও ঝুঁকি নিয়েই চলছে স্পিডবোট। ছবি: বাংলানিউজ

সন্ধ্যার পরও ঝুঁকি নিয়েই চলছে স্পিডবোট। ছবি: বাংলানিউজ

মাদারীপুর: কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুট। রাজধানী ঢাকার সঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের যোগাযোগের অন্যতম নৌপথ এটি। প্রতিদিন হাজারো যাত্রী এই নৌরুট ব্যবহার করে থাকে। এই নৌরুটে চলাচল করে ১৮টি ফেরি, ৮৭টি লঞ্চ ও ২ শতাধিক স্পিডবোট।

অল্প সময়ে পদ্মা পার হওয়া যায় বিধায় স্পিডবোট বেশ জনপ্রিয় বাহন কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে। এর মধ্যে ২৪ ঘণ্টাই ফেরি চলাচল করে থাকে এ নৌপথে। সকাল সাতটা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলাচল করে লঞ্চ এবং ভোরের আলো ফোটার পর থেকে সূর্য অস্ত যাওয়া পর্যন্ত চলাচলের নিয়ম রয়েছে স্পিডবোটের। 

স্পিডবোটে কোনো হেডলাইট না থাকায় সন্ধ্যা হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সেটি চলাচল বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। তবে এই নিষেধাজ্ঞা মানতে দেখা যাচ্ছে না। সন্ধ্যার পরও রাতের অন্ধকারে শুধু মোবাইল বা টর্চের আলো জ্বেলেই কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে চলতে দেখা যায় স্পিডবোট। যেখানে ভাড়াও নেওয়া হচ্ছে বেশি।

কাঁঠালবাড়ি ঘাট সূত্রে জানা যায়, সন্ধ্যার পর স্পিডবোট চলাচলের কারণে বহু দুর্ঘটনা এই রুটে ঘটেছে। মাঝে মধ্যেই দুর্ঘটনা ঘটছে। দুর্ঘটনারোধে সন্ধ্যার পর দ্রুত গতির এ বাহন চলাচল নিষিদ্ধ করেছে প্রশাসন। তবে এক শ্রেণির চালকেরা সন্ধ্যার পর প্রতিদিনই স্পিডবোটে যাত্রী পারাপার করছে। একশত ৫০ টাকার বদলে ভাড়া নিচ্ছে দুইশ থেকে আড়াইশ টাকা। 

যাত্রীদের নির্বিঘ্নে পার করে দেওয়ার বিষয়ে প্রলুব্ধ করে প্রতিদিনই সন্ধ্যার পরে স্পিডবোট চলছে কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে।

সরেজমিনে শনিবার (২৪ আগস্ট) সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে কাঁঠালবাড়ি স্পিডবোট ঘাটে গিয়ে যাত্রী পারাপার করতে দেখা গেছে। এসময় দেখা যায়, স্পিডবোটের টিকিট কাউন্টার বন্ধ হয়ে গেলেও ঘাট থেকেই ভাড়া নিয়ে একটি স্পিডবোটে যাত্রী উঠাচ্ছে চালকেরা। এসময় শিমুলিয়া থেকে আরও তিনটি স্পিডবোটকে কাঁঠালবাড়ি ঘাটে এসে ভিড়তে দেখা গেছে।

রাতে স্পিডবোটে চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ জেনেও কেন স্পিডবোটে এসেছেন? এমন প্রশ্নের জবাবে স্পিডবোটে আসা যাত্রী মো. হাসান বাংলানিউজকে বলেন, চালকেরা তো বলে কোনো সমস্যা নেই। লাইট আছে বোটে, এ কথা বলে উঠিয়েছে। পরে দেখলাম লাইট নেই। মোবাইলের লাইট জ্বেলে এসেছে। যা আসলেই ঝুঁকিপূর্ণ। এভাবে আর স্পিডবোটে চলাচল করবেন না বলেও জানান তিনি।

ঢাকাগামী এক যাত্রী বাংলানিউজকে জানান, দ্রুত যাওয়া দরকার। অন্য যাত্রীরা যাচ্ছে দেখে তিনিও সন্ধ্যার পর স্পিডবোটে যাচ্ছেন।

কাঁঠালবাড়ি ঘাটের স্পিডবোট চালকেরা জানান, সন্ধ্যার পর কাঁঠালবাড়ি ঘাটের কোনো বোট যাত্রী পারাপার করে না। শিমুলিয়া পার থেকেই যাত্রী নিয়ে আসে। আবার এ ঘাট থেকে যাত্রী নিয়ে যায়।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) কাঁঠালবাড়ি লঞ্চ ঘাটের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর আক্তার হোসেন বাংলানিউজকে জানান, সন্ধ্যা হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই স্পিডবোট বন্ধ রাখার নির্দেশ রয়েছে। অন্ধকারে নৌপথে দ্রুতগামীর নৌযান চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ। বিভিন্ন সময় দুর্ঘটনাও ঘটেছে। এরপরও স্পিডবোট চলতে দেখা যাচ্ছে। সন্ধ্যার পর থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত লঞ্চ সার্ভিস চালু থাকছে। রাতে স্পিডবোটে চলাচলের ব্যাপারে যাত্রীদের সচেতন হওয়া উচিত।

কাঁঠালবাড়ি নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক মো. রিয়াজ বাংলানিউজকে বলেন, কাঁঠালবাড়ি ঘাট থেকে সন্ধ্যার পরে যাতে স্পিডবোট চলাচল না করে, সেই জন্য আমরা ঘাট এলাকায় টহল দিয়ে থাকি। এরপরও কিছু কিছু স্পিডবোট যাত্রী পারাপার করে। মূলত শিমুলিয়া থেকেই একাধিক স্পিডবোট যাত্রী নিয়ে কাঁঠালবাড়ি ঘাটে এসে থাকে।

শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ বাংলানিউজকে বলেন, সন্ধ্যার পর স্পিডবোট চলাচল নিষিদ্ধ। আমাদের পুলিশি টহল রয়েছে ঘাটে। কেউ সন্ধ্যার পরে স্পিডবোট চালালে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৪৫ ঘণ্টা, আগস্ট ২৪, ২০১৯
এসএ/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   মাদারীপুর
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-08-25 09:46:02