ঢাকা, রবিবার, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

'১১ দিনের বাচ্চা নিয়ে রাস্তায়-রাস্তায় ঘুরছি'

মিরাজ মাহবুব ইফতি, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৮-১৯ ৬:৩৯:৪৪ এএম
সন্তান কোলে বাবুল ও ১১ দিন বয়সী সন্তান কোলে তার স্ত্রী ফাতেমা-ছবি: বাংলানিউজ

সন্তান কোলে বাবুল ও ১১ দিন বয়সী সন্তান কোলে তার স্ত্রী ফাতেমা-ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: মাত্র ১১ দিনের বাচ্চা আর অসুস্থ স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতাল থেকে ফিরছিলেন। ঝিলপাড়ে এসে দেখেন চারিদিকে দাউ দাউ করে জ্বলছে আগুন। জ্বলছে তার আর তার পরিবারের সব স্বপ্ন। অথচ আট বছর আগে অনেক স্বপ্ন নিয়ে ভোলা থেকে পরিবার নিয়ে ঢাকা আসেন বাবুল। এক সন্ধ্যায় চোখের পলকে সব শেষ। নিঃস্ব হয়ে এখন তিনি পরিবার নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছেন।

শুক্রবার (১৬ আগস্ট) ৪ আর ৭ বছরের সন্তান ঘরে রেখে গিয়েছিলেন। সদ্যজাত সন্তানকে নিয়ে নতুন স্বপ্নের বুনতে ফিরছিলেন নীড়ে। কিন্তু এখন সেই স্বপ্নের ডালপালা সব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। দুই সন্তানের কথা চিন্তা করে দৌড়ে গিয়েছিলেন। কপাল ভালো। দুই সন্তানই আগুনের হাত থেকে বেঁচে গেছে। কিন্তু এই সন্তানদের দিয়ে মাথা গোঁজার ঠাইটুকুই তো নেই।

কথাগুলো বলছিলেন দিনমজুর মো. বাবুল (৩৩)। বাংলানিউজের সামনে জমানো কষ্ট চেপে বললেন, ওই (শুক্রবার) রাতে আমাদের বাড়িওয়ালা ঘর থেকে বেরিয়ে আসার সময় আমার দুই সন্তানকে নিয়ে রাস্তায় চলে আসেন। তার জন্য (বাড়িওয়ালা) আমার সন্তান দুটিকে ফিরে পেয়েছি। সেদিন অন্য কিছু হতে পারতো। আল্লাহ রক্ষা করেছে। কিন্তু সহায়-সম্বল সবই গেছে। এখন স্ত্রী-সন্তান নিয়ে কোথায় যাব কিছুই জানি না।

আগুনে পুড়ে গেছে পুরো বস্তি-ছবি: বাংলানিউজবাবুলের স্ত্রী ফাতেমা আক্তার (২৭) বলেন, প্রথম দুই দিন অন্যের বাসায় ছিলাম। আজ (রোববার) ১১ দিনের সিজারের বাচ্চা নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছি। ডাক্তার বলেছে বিশ্রাম ও নিয়মিত ওষুধ খেতে। কি করব, কোথায় যাব কিছুই মাথায় আসছে না। এ কোন পরীক্ষার মধ্যে আছি? আমার গেদুগুলার (সন্তানদের) কি হবে?

শুক্রবার (১৬ আগস্ট) সন্ধ্যায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে চলন্তিকা ঝিলপাড় বস্তিতে। ফায়ার সার্ভিসের ২৪টি ইউনিটের চেষ্টায় আগুন প্রায় চার ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে আসে। এই বস্তিতে ২০-২৫ হাজার ঘর এবং এসব ঘরে প্রায় ৫০-৫৫ হাজার লোকের বসবাস ছিল বলে সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে। এখন তাদের প্রায় সবাই গৃহহীন।

বাংলাদেশ সময়: ০৬৩৮ ঘণ্টা, আগস্ট ১৯, ২০১৯
এমএমআই/এমএইচএম

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-08-19 06:39:44