bangla news

লুসি হল্টের সঙ্গে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর সাক্ষাৎ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৮-১৪ ৫:৩৮:১২ পিএম
লুসি হল্টের সঙ্গে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর সাক্ষাৎ, ছবি: বাংলানিউজ

লুসি হল্টের সঙ্গে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর সাক্ষাৎ, ছবি: বাংলানিউজ

ব‌রিশাল: বরিশালের অক্সফোর্ড মিশনে বসবাসরত ব্রিটিশ-বাংলাদেশি (দ্বৈত) নাগরিক লুসি হেলেন ফ্রান্সিস হল্টের শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতে তার সঙ্গে দেখা করেছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক।

বুধবার (১৪ আগস্ট) দুপুরে অক্সফোর্ড মিশনে লুসির সঙ্গে দেখা করেন প্রতিমন্ত্রী।

এসময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. শহীদুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের প্রবেশন অফিসার সাজ্জাদ পারভেজ প্রমুখ।

এসময় প্রতিমন্ত্রী লুসি হল্টের শারীরিক খোঁজখবর নেওয়ার পাশাপাশি কিছু সময় কুশল বিনিময় করেন। এছাড়া উন্নত চিকিৎসার জন্য কিছু দিনের মধ্যেই লুসিকে ঢাকায় নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী। 

নব্বই বছর বয়সী লুসি শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছেন। অক্সফোর্ড মিশনের পাশাপাশি এখন স্হানীয় প্রশাসন সার্বক্ষণিক দেখভাল করছেন লুসির।

দীর্ষ ৫৭ বছর ধরে এদেশে মানুষের সেবা করেছেন লুসি হল্ট। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় জীবনের মায়া তুচ্ছ করে যুদ্ধাহত ব্যক্তিদের শুশ্রূষা করেছেন মানবদরদি এই ব্রিটিশ নাগরিক। বর্তমানে বিনা পারিশ্রমিকে বরিশাল অক্সফোর্ড মিশনের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তিনি শিশুদের ইংরেজি পড়ান। শিশুদের জন্য তহবিল সংগ্রহেরও কাজ করছেন তিনি।

দীর্ঘ সময় ঘুরে ফিরে তিনি কাজ করেছেন যশোর, খুলনা, নওগাঁ, ঢাকা ও গোপালগঞ্জে। এখন এ দেশের মাটিতেই তিনি সমাহিত হতে চান তিনি।

৯০ বছর বয়সী লুসি হেলেন ফ্রান্সিস হল্টের জন্ম ১৯৩০ সালের ১৬ ডিসেম্বর যুক্তরাজ্যের সেন্ট হ্যালেন্সে। বাবা জন হল্ট ও মা ফ্রান্সিস হল্ট। দুই বোনের মধ্যে ছোট লুসি। তার বড় বোন রুত অ্যান রেভা ফেলটন স্বামী ও তিন ছেলে নিয়ে তিনি যুক্তরাজ্যে বসবাস করেন। লুসি ১৯৬০ সালে প্রথম বাংলাদেশে আসেন। যোগ দেন বরিশাল অক্সফোর্ড মিশনে। এখানে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশুদের পড়াতেন। এরপর ২০০৪ সালে অবসর নেওয়ার পর তিনি আর দেশে ফিরে যাননি।

বাংলা‌দেশ সময়: ১৭২৪ ঘণ্টা, আগস্ট ১৪, ২০১৯
এমএস/ওএইচ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-08-14 17:38:12