bangla news

ক্যামেরা বসানোয় আমূল পরিবর্তন ভূমি অফিসে

সৌমিন খেলন, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-১৮ ১০:৪০:৪৮ এএম
সহকারী কমিশনার (ভূমি) বুলবুল আহমেদ। ছবি: বাংলানিউজ

সহকারী কমিশনার (ভূমি) বুলবুল আহমেদ। ছবি: বাংলানিউজ

নেত্রকোণা: আটটি ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরা বসানোর ফলে নেত্রকোণা সদর ভূমি অফিসে আমূল পরিবর্তন এসেছে।

এতে ভূমি অফিসে বেড়েছে কাজের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা। এছাড়া ক্যামেরা বসানোর পর ভিডিও ফুটেজ দেখে প্রথমে এক মোটরসাইকেল চোরকে শনাক্ত করা সম্ভব হয় বলে জানিয়েছেন নেত্রকোণার সহকারী কমিশনার (ভূমি) বুলবুল আহমেদ।

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, ক্যামেরা বসানো হয়েছে জানতে পেরে ধীরে ধীরে ভূমি অফিসের আঙিনা ছেড়েছে দালাল চক্রের লোকজন। নিজের দায়িত্ব পালনে আরও বেশি সতর্ক হয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। সিসি ক্যামেরার কল্যাণে অফিসে কে কখন আসছেন, কার সঙ্গে কে কোন ধরনের আচরণ করছেন এসবের সবকিছুই এখন নিজের কক্ষে বসে মনিটরিং করা যাচ্ছে।

কোনো সেবাগ্রহীতা যেন তার প্রাপ্য সেবা থেকে বঞ্চিত বা অসৌজন্য আচরণের শিকার না হন সে বিষয়টিও মনিটরে নজরদারি হচ্ছে সবসময়। অন্তত অফিসের ভেতরে কাজের বিনিময়ে অবৈধ লেনদেনের কোনোরকম সুযোগ নেই।

সহকারী কমিশনার জানান, সিসি ক্যামেরা বসানোর আগে মূল ফটক ধরে অফিসে ঢুকতে গেলে দম বন্ধ হয়ে আসতো দুর্গন্ধে।কিন্তু ক্যামেরা বসানোর পর পথচারীরা এখন ভূমি অফিসের আঙিনায় এসে খোলামেলা পরিবেশে মলমূত্র ত্যাগ করতে পারছে না।

নিজের কক্ষে সিসি ক্যামেরা বসানো নিয়ে সহকারী কমিশনার বুলবুল বাংলানিউজকে বলেন, আগে নিজেকে জবাবদিহিতায় আনতে হবে। স্বচ্ছতা পরীক্ষার জন্য অন্যকে সিসি ক্যামেরার আওতায় নেওয়া হল অথচ নিজে আসলাম না তা হতে পারে না।

স্বচ্ছতা থাকতে হবে সবার ক্ষেত্রেই মন্তব্য করে বুলবুল আরও বলেন, আমার আগে ভূমি অফিসে দায়িত্বে ছিলেন পূর্ণেন্দু দেব স্যার। তিনি অত্যন্ত পরিশ্রমী, ন্যায়বান ও প্রযুক্তি বান্ধব একজন কর্মকর্তা ছিলেন। আমি তার সুনাম ধরে রাখতে চাই।

বাংলাদেশ সময়: ১০২৯ ঘণ্টা, জুলাই ১৮, ২০১৯
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   নেত্রকোণা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-07-18 10:40:48