ঢাকা, সোমবার, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৬ আগস্ট ২০১৯
bangla news

মেহেরপুরে বাস ধর্মঘট প্রত্যাহার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-১৬ ৫:২১:৩০ পিএম
মেহেরপুরের আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল

মেহেরপুরের আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল

মেহেরপুর: অবশেষে মেহেরপুরে জেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে টানা পাঁচদিন পর বাস ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছে জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়ন।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) দুপুর থেকে মেহেরপুর আন্তঃজেলা সব রুটে লোকাল বাস চলাচল শুরু হয়। 

জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, বাস মালিক সমিতি ও মটর শ্রমিক ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের বৈঠক শেষে দাবি মেনে নেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা করেন শ্রমিকরা।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন- জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও মেহেরপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম রসুল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এবারত হোসেন, জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আহসান হাবীব সোনা, সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমানসহ বাস মালিক এবং মটর শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা।

আন্তঃজেলার সব রুটে টানা ৩৬ দিন বাস চলাচলের পর ৪৬ দিন বাস বন্ধ (হল্ট) থাকে। বন্ধের সময়সীমা কমাতে মেহেরপুর-কুষ্টিয়া সড়কে প্রতিটি বাস দিনে দু’বার চলাচলের পরিবর্তে একবার চালানোর দাবিতে শ্রমিকরা ধর্মঘট শুরু করে। শ্রমিকদের দাবি এ দীর্ঘ সময় কোনো কাজ না পেয়ে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করতে হয় তাদের।

তবে বাস মালিকরা জানিয়েছেন কোনোরকম আলোচনা ছাড়াই ধর্মঘট ডেকে জনভোগান্তি সৃষ্টি করেছেন শ্রমিকরা।

মেহেবুব ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার শেখ জাহিদুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন বলেন, উভয় পক্ষের সঙ্গে সমঝোতার মাধ্যমে বিষয়টি সমাধান করা হয়েছে। এ নিয়ে আর কোনো দ্বন্দ্ব থাকবে না। 

শ্রমিকদের সব দাবি আগামী একমাসের মধ্যে পূরণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

দাবি আদায়কে কেন্দ্র করে বাস মালিক ও শ্রমিক ইউনিয়নের নেতাদের মধ্যে দ্বন্দ্বকে কেন্দ্র করে গত ১১ জুলাই থেকে মেহেরপুর আন্দঃজেলার সব রুটে লোকাল বাস চলাচল বন্ধ করে দেন মটর শ্রমিক ইউনিয়ন।

বাংলাদেশ সময়: ১৭২১ ঘণ্টা, জুলাই ১৬, ২০১৯
জিপি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   মেহেরপুর
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-07-16 17:21:30