bangla news

নালিতাবাড়ীতে ভোগাই নদীর বাঁধ ভেঙে সাত গ্রাম প্লাবিত

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-১৬ ৪:৩২:০০ এএম
নালিতাবাড়ীর মরিচপুরান এলাকায় দু’টি স্থানে ভোগাই নদীর বাঁধ ভেঙে সাত গ্রামে প্লাবিত হয়েছে। ছবি: বাংলানিউজ

নালিতাবাড়ীর মরিচপুরান এলাকায় দু’টি স্থানে ভোগাই নদীর বাঁধ ভেঙে সাত গ্রামে প্লাবিত হয়েছে। ছবি: বাংলানিউজ

শেরপুর: উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে ও কয়েক দিনের অবিরাম বর্ষণে শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার মরিচপুরান এলাকায় দু’টি স্থানে ভোগাই নদীর বাঁধ ভেঙে সাত গ্রামে প্লাবিত হয়েছে। বাড়ি ঘরে পানি ঢুকে যাওয়ায় নিদারুণ কষ্টে দিনাতিপাত করছেন সেসব গ্রামের মানুষ।

সোমবার (১৫ জুলাই) বিকেলে এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, কয়েক দিন ধরে অতি বৃষ্টি এবং উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে ভোগাই নদীর পানি বেড়ে গেছে। 

গত শনিবার (১৩ জুলাই) মধ্যরাতে উত্তর কুন্নগন রাজারখালপাড়ে এলাকায় ভোগাই নদীর ২০০ ফুট বাঁধ এবং ফকিরপাড়া চেয়ারম্যানের বাড়ির পেছনে ভোগাই নদীর সাড়ে ৪০০ ফুট বাঁধ ভেঙে যায়। এতে ভোগাই নদীর ঢলের পানি ঢুকে মরিচপুরান, বাঁশকান্দা, ফকিরপাড়া, খলাভাঙ্গা, ভোগাইরপাড়, মরিচপুরান পুর্বপাড়া ও উল্লারপাড় গ্রামের আশপাশের এলাকায় বন্যা দেখা দেয়। সড়ক তলিয়ে যাওয়ায় স্কুলে যেতে পারছে না ফকিরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়, খলাভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। পাহাড়ি ঢলের পানিতে এলাকার ২০-৩০টি পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। 

এলাকাবাসী ঢলের পানি নিষ্কাশনের জন্য ভেঙে যাওয়া বাঁধ দ্রুত সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোকছেদুর রহমান লেবু ভাঙনকবলিত অংশ পরিদর্শন করে মরিচপুরান ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান খন্দকার শফিক আহমেদকে বাঁধ সংস্কারের নির্দেশ দিয়েছেন। 

চেয়ারম্যান খন্দকার শফিক আহমেদ বাংলানিউজকে জানান, দুই অংশে সাড়ে ৬০০ ফুট ভোগাই নদীর বাঁধ ভেঙে গেছে। ভাঙন অংশ দিয়ে পানি প্রবেশ করায় সড়কসহ সাতটি গ্রামে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। নদীর পানি কমলেই বাঁধ সংস্কারের দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া হবে। 

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোকছেদুর রহমান লেবু বাংলানিউজকে বলেন, দু’টি ভাঙন অংশ দেখেছি। ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে বাঁধ সংস্কার করতে বলা হয়েছে। 

বাংলাদেশ সময়: ০৪১৭ ঘণ্টা, জুলাই ১৬, ২০১৯
এইচএ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-07-16 04:32:00