ঢাকা, শনিবার, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬, ২০ জুলাই ২০১৯
bangla news

টাকা দিলে টিকা মেলে, ফেনীর হজযাত্রীদের অভিযোগ

সোলায়মান হাজারী ডালিম, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-১২ ১০:১৫:৩৮ এএম
ফেনী সিভিল সার্জন অফিস, ছবি: বাংলানিউজ

ফেনী সিভিল সার্জন অফিস, ছবি: বাংলানিউজ

ফেনী: প্রতি বছরের মতো এবারও ভ্যাকসিন বা টিকা নিতে গিয়ে ফেনী সিভিল সার্জন অফিসের লোকজনের কাছে হয়রানির শিকার হচ্ছেন জেলাটির হজযাত্রীরা। বিনামূল্যে দেওয়ার কথা থাকলেও অফিসটিতে টাকা দিলেই তবে টিকা মিলছে বলে অভিযোগ হজ গমনেচ্ছুদের।

একেকজন হজযাত্রীকে দুটো টিকা বা ভ্যাকসিন সরকারিভাবে বিনামূল্যে দেওয়ার নির্দেশনা রয়েছে। সে নির্দেশনা মানছে না ফেনী সিভিল সার্জন অফিস। অফিসটিতে টাকা দিয়ে টিকা দেওয়া নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ভুক্তভোগী, হজ কাফেলার কর্মকর্তা, এজেন্সিসহ একাধিক সূত্রে জানা গেছে, ফেনী জেলা সিভিল সার্জন অফিসের স্টোনো টাইপিস্ট বাবুল চন্দ্র দাস টিকা দেওয়ার সময় হজযাত্রীদের বিভিন্নভাবে হয়রানি করে থাকেন। অফিসে ভ্যাকসিন রিজার্ভ থাকার পরও বাবুল হজযাত্রীদের কিংবা হজ কাফেলার লোকজনকে অনেকটা ধমকের সুরে বলেন, ‘অন যান, টিকা শেষ অই গেছে, কাইল্যা আইয়েন (কাল আসেন), আঁই (আমি) ব্যস্ত আছি।’ তিনি এমন টালবাহানা করেন। কিন্তু ২০০ টাকা দিলেই কৌশলে টিকা দেওয়া রুমে নিয়ে যান বাবুল। টিকা দু’টি দেন টাকার বিনিময়ে।

আলী আজম নামে এক হজযাত্রী রোববার (০৭ জুলাই) অফিসটিতে টিকা নেওয়ার জন্য যান। সকাল ১০টায় গেলে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করার পর দুপুর ২টার দিকে তিনি ২০০ টাকা দিয়ে টিকা নিয়ে বাড়ি ফেরেন বলে জানান তিনি।

এদিকে, স্টোনো টাইপিস্ট বাবুলের কাছে হজযাত্রীদের টিকা দেওয়ায় টাকা নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বাংলানিউজকে বলেন, ফেনী সিভিল সার্জন অফিসে প্রয়োজনের তুলনায় ভ্যাকসিন সরবরাহ কম। এখানে প্রথম ধাপে ৩৬০, দ্বিতীয় ধাপে ৮০০, তৃতীয় ধাপে ২৫০ ও চতুর্থ ধাপে ১৫০টি ভ্যাকসিন বা টিকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে। এসময় টাকার বিনিময়ে হজযাত্রীদের টিকা দেওয়ার বিষয়টি তিনি কৌশলে এড়িয়ে যান।

জেলাটির ভুক্তভোগী ধর্মপ্রাণ মুসুল্লিদের অভিযোগ, ফেনী জেলার জন্য বরাদ্দ করা টিকা পার্শ্ববর্তী জেলার লোকদের মাঝেও টাকার বিনিময়ে সরবরাহ করছেন অফিসটির কিছু অসাধু লোক। এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসন যেনো কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করে, সে দাবি তাদের।

ফেনী জেলা সিভিল সার্জন অফিসের প্রধান সহকারী আবদুল মান্নান বাংলানিউজকে বলেন, এখানে সব হজযাত্রীকে বিনামূল্যে টিকা দেওয়া হয়। কিন্তু কেউ যদি টাকা নিয়ে থাকেন, তাহলে এটা খুবই দুঃখজনক।

সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজজামান প্রশিক্ষণে ঢাকা থাকার কারণে এ ব্যাপারে তার মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

চলতি বছরের হজ গমনেচ্ছুদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও টিকা দেওয়া গত ১৬ জুন থেকে শুরু হয়। সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের ম্যানিনজাইটিস বা ইনফ্লুয়েঞ্জা টিকা দেওয়ার জন্য সারাদেশের মতো ফেনীর সিভিল সার্জন কার্যালয়েও স্বাস্থ্য ও টিকাদান কেন্দ্র খোলা হয়েছে।

সৌদি গিয়ে যাতে করে কোনো রোগ না ছড়ান বা নিজে না ভুগেন, সেজন্য হজে যাওয়ার আগে সব হজযাত্রীকে দু’টি করে টিকা দেওয়া বাংলাদেশে বাধ্যতামূলক। কেননা, প্রত্যেক হজযাত্রীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর ম্যানিনজাইটিস ও ইনফ্লুয়েঞ্জার টিকা নিয়ে একটি স্বাস্থ্যসনদ জেদ্দা বিমানবন্দরে দেখাতে হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১০১২ ঘণ্টা, জুলাই ১২, ২০১৯
এসএইচডি/টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   হজ ফেনী
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-07-12 10:15:38