ঢাকা, সোমবার, ৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ আগস্ট ২০১৯
bangla news

২০২১ সালে ডাভোস সম্মেলনে প্রধান ফোকাসে থাকবে বাংলাদেশ

মহিউদ্দিন মাহমুদ, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৭-০২ ৯:৫৮:০৫ পিএম
ক্লাউস সোয়াবের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা/ছবি: পিআইডি

ক্লাউস সোয়াবের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা/ছবি: পিআইডি

দালিয়ান, চীন থেকে: ২০২১ সালে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের ডাভোস সম্মেলনে বাংলাদেশ প্রধান ফোকাসে থাকবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক। এটি বাংলাদেশের জন্য বিরাট অর্জন বলেও মন্তব্য করেন পররাষ্ট্র সচিব।

মঙ্গলবার (২ জুলাই) চীনের ডালিয়ান আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী চেয়ারম্যান ক্লাউস সোয়াব এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মধ্যেকার বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠকে ওয়ার্ল্ড অর্থনৈতিক ফোরামের ম্যানেজিং ডিরেক্টরও উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকের পর পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে একথা জানান। এসময় প্রধানমন্ত্রীর স্পিচ রাইটার নজরুল ইসলামও উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকের আলোচনার কথা তুলে ধরে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, এটা খুবই আশাব্যাঞ্জক যে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরাম বাংলাদেশকে ফোকাস করতে চাচ্ছে ২০২০ এবং ২০২১-এ। ২০২১ সালে দেশ হিসেবে ডাভোসে প্রধান ফোকাস হবে বাংলাদেশ। এটা বিরাট অর্জন। এটা সহজে আসে না।

তিনি বলেন, ২০২০ এ বাংলাদেশ ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরাম একটা ইভেন্ট করবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে এবং পরের বছর ২০২১ এ ডাভোসে বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধুকে ফোকাস করা হবে। বাংলাদেশে ইভেন্টে ক্লাউস সোয়াব আসবেন।

শহীদুল হক বলেন, একই সঙ্গে আগামী অক্টোবরে দিল্লিতে সাউথ এশিয়া ফোরাম হবে। সেখানে একটা সেশনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে রেখে ওনারা (বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরাম) আঞ্চলিক সহযোগিতা, সমন্বিত উন্নয়ন এসব নিয়ে একটা সেশনের প্রস্তাব করেছেন। প্রধানমন্ত্রী এ আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন। এটা হবে অক্টোবরের ৩/৪ তারিখে। আমরা এটা নিয়ে ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছি। 

বৈঠকে ক্লাউস সোয়াব অর্থনীতিতে বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য অগ্রগতির প্রশংসা করেন বলে জানান পররাষ্ট্র সচিব। 

সোয়াব প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, আপনার সামনে এগিয়ে যাওয়া ও বুদ্ধিদীপ্ত পলিসি বৈশ্বিকভাবে স্বীকৃত। এর ফলেই এই অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বা উন্নয়ন যেটা হচ্ছে সেটা। 

শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা বলেন, সম্পদের এতো সীমাবদ্ধতা থাকা সত্ত্বেও যে বাংলাদেশ এ ধরনের উন্নয়ন করেছে এটা আসলেই বিস্ময়কর। 

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে ক্লাউস সোয়াব বলেন, এই প্ল্যাটফর্মে আমরা এই ইস্যুটা নিয়ে আলোচনা করি। এ ব্যাপারে ভবিষ্যতেও আপনি এ বিষয়টা ব্যবহার করতে পারেন। 

রোহিঙ্গা সংকট প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, উনি বলেছেন আমরা দ্বিপাক্ষিকভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছি। কিন্তু ফেরত পাঠানো যাচ্ছে না। সেজন্য আর্ন্তজাতিক সহযোগিতা দরকার। আর্ন্তজাতিক সম্প্রদায় যেন অব্যাহতভাবে প্রেসার দেয় এ ব্যাপারে উনি বলেছেন।

এ বিষয়ে শেখ হাসিনা আরও বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যাটা ক্রমশ পাচার, পরিবেশ ইস্যু সব কিছু নিয়ে একটা চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা দিয়েছে বাংলাদেশের জন্য।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের প্রতিষ্ঠাতার বৈঠকে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান।

****চীন-ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের বন্ধুত্ব সমান: শেখ হাসিনা
বাংলাদেশ সময়: ২১৫৪ ঘণ্টা, জুলাই ০২, ২০১৯
এমইউএম/এএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2019-07-02 21:58:05