ঢাকা, বুধবার, ২ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ জুলাই ২০১৯
bangla news

যশোরে টানা ৫ বছর ওসি অপূর্ব, অবশেষে স্ট্যান্ড রিলিজ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-২৫ ৮:৫২:৫৭ পিএম
অপূর্ব হাসান

অপূর্ব হাসান

যশোর: যশোর জেলার দুই থানায় টানা ৫ বছরের বেশি সময় দায়িত্ব পালন করা বহুল আলোচিত ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অপূর্ব হাসানকে অবশেষে স্ট্যান্ড রিলিজ করা হয়েছে।

সোমবার (২৪ জুন) পুলিশ সদর দফতর থেকে জেলা পুলিশকে পাঠানো এক আদেশে এ সিদ্ধান্ত জানা যায়। একই আদেশে ওসি অপূর্ব হাসানকে ঢাকা শিল্প-বাণিজ্য পুলিশে যোগদান করতে বলা হয়েছে।

যশোর জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) আনসার উদ্দিন বাংলানিউজকে বলেন, পুলিশ সদর দফতরের নির্দেশে যশোর কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি অপূর্ব হাসানকে স্ট্যান্ড রিলিজ করা হয়েছে। তাকে শিল্প পুলিশে যোগদানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ২০১৪ সালের প্রথম দিকে ঢাকা তেজগাঁও থানার ওসি অপূর্ব হাসান ভারতীয় সীমান্তবর্তী বেনাপোল পোর্ট থানায় যোগ দেন।

ওসি অপূর্বের বিরুদ্ধে শত কোটি টাকা অবৈধ উপার্জনের একটি অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) তদন্ত করছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সম্প্রতি যশোরে পরপর কয়েকটি হত্যাকাণ্ড ও ছুরিকাঘাতসহ অপরাধ বেড়ে যাওয়ায় আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি আলোচনায় উঠে আসে। একমাসের ব্যবধানে যশোর শহর ও শহরতলীতে অন্তত ৫টি হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

সর্বশেষ গত ২০ জুন সন্ধ্যায় বাহাদুরপুর এলাকায় ছুরিকাঘাতে প্রাণ যায় ১০ম শ্রেণির মাদ্রাসাছাত্র সম্রাটের। একইদিন শহরের খোলাডাঙ্গা এলাকা থেকে ড্রামবন্দি সিনবাদ নামে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ১৮ জুন শহরের শংকরপুর এলাকায় গণপিটুনিতে সন্ত্রাসী সানি নিহত হন। এসময় বোমায় আহত হন আর এক সন্ত্রাসী নয়ন ওরফে হিটার নয়ন। ১৩ জুন শহরের সন্ন্যাসী দীঘিরপাড় এলাকায় ছুরিকাঘাতে ফেরদৌস (২০) নামে এক যুবক নিহত হন।

গত ৬ জুন যশোরের রায়পাড়ায় টিবি ক্লিনিক এলাকার ৫ম শ্রেণির ছাত্র আব্দুল্লাহকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। আর গত ২০ মে বাহাদুরপুর এলাকায় ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয় জুটমিল শ্রমিক শহীদ কাজীকে।

এ হত্যাকাণ্ডের পাশাপাশি গত ২০ জুন রাতে যশোরে পুলিশের বিরুদ্ধে সুফিয়া খাতুন (৫০) নামে ‘অসুস্থ এক নারীর পেটে লাথি মারার অভিযোগ’ ওঠে। শহরের খড়কি হাজামপাড়া এলাকায় শ্রাবণী নামে নারীকে ধরতে যান কোতোয়ালি থানার এসআই বিপ্লব ও ইকবাল ওই নারীর পেটে লাথি মারেন। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত দু’কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের পরিবর্তে ওই নারী ও তার পরিবারকে উল্টো চাপ দিতে থাকে। একপর্যায়ে ওই নারী চিকিৎসা সম্পন্ন না করেই হাসপাতাল ছাড়তে বাধ্য হন।

এর আগে গত ১৫ জুন বিকেলে উপশহর এলাকা থেকে অপহরণের শিকার হয় যশোর উপশহর উচ্চবালিকা বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী ও সদর উপজেলার পাগলাদহ গ্রামের তরিকুল ইসলামের মেয়ে তানিয়া ইসলাম বৃষ্টি (১৪)। অপহরণের বিষয়ে কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ দিলেও এক সপ্তাহ ঘুরিয়েও পুলিশ মামলা নেয়নি। সর্বশেষ এই দু’টি ঘটনা নিয়ে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়। এছাড়া ওসি অপূর্ব হাসানের বিরুদ্ধে অবৈধ ও জ্ঞাত আয় বহির্ভূতভাবে কোটি কোটি টাকার সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৯ ঘণ্টা, জুন ২৫, ২০১৯
ইউজি/এএটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   যশোর
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-06-25 20:52:57