ঢাকা, সোমবার, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬, ২২ জুলাই ২০১৯
bangla news

বংশালে দুর্বৃত্তের হামলায় আহত কণ্ঠশিল্পীর মৃত্যু

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-১৯ ১১:৩৮:০৩ পিএম
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফটক

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফটক

ঢাকা: রাজধানীর পুরান ঢাকার বংশালে দুর্বৃত্তের হামলায় গুরুতর আহত কণ্ঠশিল্পী মোহাম্মদ উল্লাহ অভি নীরব (২৭) চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মারা গেছেন।

বুধবার (১৮ জুন) রাত ৮টার দিকে জরুরি বিভাগের ওয়ান স্টপ ইমার্জেন্সি সেন্টারে তার মৃত্যু হয়।

বাবা অলিউল্লাহ, মা কোহিনূর বেগমের সঙ্গে বংশাল আরমানিটোলা এলাকায় একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতেন অভি।

অভির দুই বোন তাসনুভা আক্তার ও উম্মে কুলসুম জানান, তার ভাই এসএসসি পাস করার পর আর পড়ালেখা করেনি। ছোটবেলা থেকেই অভির সংগীতের প্রতি আগ্রহ ছিল। তাই এসএসসি পরীক্ষার পর সংগীত নিয়ে চর্চা করতে থাকে। একপর্যায়ে এলাকাসহ বিভিন্ন জায়গার অনুষ্ঠানে সে গান গেয়ে থাকে এবং একটি সংগীত সংগঠনের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে কাজ করতো।

দুই বোন আরো জানান, গত ১৩ জুন (বৃহস্পতিবার) সকাল ৭টার দিকে বাসায় নাস্তা করার সময় অভির ফোনে একটি কল আসে। সেই কলে কথা বলে অভি দ্রুত ঘর থেকে বেরিয়ে যায়। তার কিছুক্ষণ পরে একটি মেয়ের থেকে সংবাদ পেয়ে আমরা ওই এলাকার মুকিম বাজার কবরস্থানের ভেতর থেকে অভিকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করি। দ্রুত সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। পরে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢামেক হাসপাতালে আনা হয়। সেদিন থেকেই সে ঢামেক জরুরি বিভাগ আইসিইউতে চিকিৎসাধীন। তার কোনো সাড়া শব্দ ছিলো না, অচেতন অবস্থায় তার চিকিৎসা চলছিল, আজ তার মৃত্যু হলো।

বাসা থেকে ডেকে নিয়ে অভির উপরে কারা হামলা করলো, এই প্রশ্নের জবাবে পরিবারের সদস্যরা জানান, ২৮ রমজানের সময় অভি আমাদের বলেছে আমার কণ্ঠ আমার শত্রু বাড়িয়ে দিয়েছে। ওরা আমার উপরে একদিন হামলা করবে, ওরা আমাকে বাঁচতে দেবে না। তবে ওরা কারা, কারা তাকে হুমকি দিতো এর কিছুই জানায়নি অভি।

এছাড়া অন্য কোনো ঘটনা থাকতে পারে বলে পরিবারের সদস্যরা সন্দেহ পোষণ করেছেন। ঘটনার দিন যেই মেয়েটি তাদের সংবাদ দিয়েছিল, তাকেও সন্দেহের তালিকায় রাখছে অভির পরিবার।

ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের আবাসিক চিকিৎসক (আরএস) মো. আলাউদ্দিন জানান, ঘটনার দিন থেকেই অভি হাসপাতালের জরুরি বিভাগের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিল।

বংশাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইদুর রহমান অভির মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ঘটনার দিন সন্ধ্যায় অভির পরিবার থানায় একটি মামলা করে। সেই মামলা এখন হত্যা মামলা হবে। বিস্তারিত ঘটনা উদঘাটনের জন্য পুলিশ কাজ করছে, আশা করি শিগগিরই বিষয়টি জানা যাবে।

বাংলাদেশ সময়: ২৩৩৬ ঘণ্টা, জুন ১৯, ২০১৯
এজেডএস/জেডএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-06-19 23:38:03