ঢাকা, বুধবার, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬, ২৪ জুলাই ২০১৯
bangla news

মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটির সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-১৮ ৫:০১:২০ পিএম
সংবাদ সম্মেলনে মুনিরীয়া যুব তবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা। ছবি: বাংলানিউজ

সংবাদ সম্মেলনে মুনিরীয়া যুব তবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: চট্টগ্রাম জেলার রাউজানে ঘর-বাড়ি ভাঙচুর, লুটপাট করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটি। একই সঙ্গে এ ঘটনায় জড়িতদের বিচারের আওতায় আনার পাশাপাশি ভুক্তভোগীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবিও জানিয়েছে সংগঠনটি।  

মঙ্গলবার (১৮ জুন) জাতীয় প্রেসক্লাবের মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটি, বাংলাদেশ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আবুল মনছুর। 

তার অভিযোগ, রাউজান উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সাধারণ মানুষের ওপর বাড়ি-ঘরে হামলা চালানো হয়েছে। নষ্ট করা হয়েছে ওই এলাকার শান্তি-শৃঙ্খলা। এ অবস্থায় কাগতিয়া দরবার শরীফ ও কাগতিয়া এশাতুল উলুম কামিল এমএ মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে। নিশ্চিতের প্রধানমন্ত্রীর আশু সুদৃষ্টি কামনা করেন। 

তিনি বলেন, এ হামলার পর থেকে রাউজানের বিভিন্ন এলাকার মানুষ ঘর ছাড়া। এবাদতখানা, বাড়ি-ঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাঙচুর করে লুটপাট করা হয়েছে। আমরা এসব ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তসহ মিথ্যা মামলা প্রত্যহারের দাবি জানাই। 

সংবাদ সম্মেলনে ড. আবুল মনছুর অভিযোগ করেন, সরকারি দলের ব্যানারে জামায়ত-বিএনপির কিছু চিহ্নিত সন্ত্রাসী রাউজানে এই বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে। এর মধ্যে মাওলানা জামাল হোসেন অন্যতম। 

‘নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের ছত্রছায়ায় বাড়ি-ঘর ভাঙচুরসহ সাধারণ মানুষকে নির্যাতন করা হয়েছে। তারা রাউজানের মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটির তরিকতের অনুসারীদের ওপর হামলা চালিয়েছে। এর মধ্যে রাউজানের বিভিন্ন এলাকার ২৬টি তরিকতের খানকাহ, ৪৬টি বাড়ি-ঘর, ১৮টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালায়। এতে ৬ কোটি ৩ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।’

এ অরাজক পরিস্থিতি বন্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।  

সংবাদ সম্মেলনে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ সরওয়ার কামাল, মুনিরীয়া যুব তবলীগের কেন্দ্রীয় পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক ছিবগাতুল্লাহ আরিফ, ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক মুহাম্মদ শহিদুল আলম, ঢাকা জেলার এশায়াত সম্পাদক মাওলানা রাকিব উদ্দীন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫৫ ঘণ্টা, জুন ১৮, ২০১৯
জিসিজি/এমএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2019-06-18 17:01:20