ঢাকা, বুধবার, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬, ২৪ জুলাই ২০১৯
bangla news

ইবতেদায়ী শিক্ষকদের মূল্যায়ন সরকারের সঠিক সিদ্ধান্ত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-১৮ ৩:০৪:০৫ পিএম
অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজু

অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজু

ঢাকা: স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষকদের জাতীয় স্কেলে বেতন দেওয়া বর্তমান সরকারের যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত বলে মন্তব্য করেছেন বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টের সচিব ও স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজু।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষাবান্ধব সরকার। শিক্ষাখাতে ব্যাপক উন্নয়ন করেছে। সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি মাদ্রাসা শিক্ষাখাতেও উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন হয়েছে। 

মঙ্গলবার (১৮ জুন) জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলরুমে বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষক পরিষদের উদ্যোগে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষকদের জাতীয় স্কেলে বেতন দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন ও দীর্ঘায়ু কমনা করে এক দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষক পরিষদের সভাপতি এস এম জয়নুল আবেদীন জেহাদীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. তেলাওয়াত হোসেন খান, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রলীগের সভাপতি অধ্যাপক রুহুল আমিন, সাজিদল ইসলাম, সাইদুর রহমান পান্না প্রমুখ।

শাহজাহান আলম বলেন, ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা, মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তর, মাদ্রাসা শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য দূরীকরণ এবং স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষকদের জাতীয় স্কেলে বেতন দেওয়া বর্তমান সরকারের যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাদার অব হিউম্যানিটি, দীর্ঘ ৩৬ বছর পর স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষকদের জাতীয় স্কেলে বেতন দেওয়ার অনুমোদন দিয়ে ইবতেদায়ী মাদ্রাসার জননী খেতাবে ভূষিত হলেন। 

সভাপতির বক্তব্যে জয়নুল আবেদীন জেহাদী বলেন, বঙ্গবন্ধু ১৯৭৪ সালে ৩৬ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করে ইতিহাস সৃষ্টি করেছিলেন। তার কন্যা শেখ হাসিনা ২০১৩ সালে ২৬ হাজার ১৯৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করেন। তার ধারাবাহিকতায় বর্তমানে ৪ হাজার ৪১২ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসার প্রায় ২১ হাজার ৫০০ শিক্ষকের জাতীয় স্কেলে বেতন দিয়ে অনন্য ইতিহাস সৃষ্টি করেন বলে জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫৫ ঘণ্টা, জুন ১৮, ২০১৯ 
জিসিজি/আরবি/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-06-18 15:04:05