ঢাকা, মঙ্গলবার, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ২৩ জুলাই ২০১৯
bangla news

বগুড়ায় ১০০ টাকায় পুলিশে চাকরি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-১৭ ৩:২১:৫৮ পিএম
চাকরির লিফলেট বিতরণ করছেন বগুড়া জেলার এসপি আলী আশরাফ ভূঁইয়া। ছবি: আরিফ জাহান

চাকরির লিফলেট বিতরণ করছেন বগুড়া জেলার এসপি আলী আশরাফ ভূঁইয়া। ছবি: আরিফ জাহান

বগুড়া: পুলিশ কনস্টেবল পদে ৫৪ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে বগুড়ায়। এরমধ্যে ৪৬ জন পুরুষ ও ৮ জন নারী এ পদে নিয়োগের সুযোগ পাবেন। তাও কোনো ধরনের ঘুষ-তদবির ছাড়াই। শুধু সরকার নির্ধারিত ১০০ টাকা ফি দিতে হবে। আগামী ৩ জুলাই পুলিশ ‘ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল’ পদে এ নিয়োগ দেওয়া হবে।

কোনো ধরনের ঘুষ-দুর্নীতি ও তদবির ছাড়াই ১০০ টাকায় পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগ দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে মাঠে নেমেছেন জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) আলী আশরাফ ভূঁইয়া।

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি জারি হওয়ার আগে ও পরে থেকে এনিয়ে নানাভাবে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন জেলার পুলিশ সুপার।

তার এই ঘোষণা জেলায় ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। কারণ তিনি শুধু ঘোষণা দিয়ে থেমে নেই। এ কার্যক্রম পুরোপুরি সফল করতে জেলার ১২ থানায় মানুষকে জানান দিতে জেলার পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যাপকভাবে লিফলেট বিতরণ ও পোস্টারিং করা হচ্ছে। ঘুষ-দুর্নীতি মুক্ত এবং শতভাগ মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগ দিতে জেলার পুলিশ সুপারের উদ্যোগে জেলাজুড়ে এ কার্যক্রম চালানো হচ্ছে।চাকরির পোস্টার লাগাচ্ছেন বগুড়া জেলার এসপি আলী আশরাফ ভূঁইয়া। ছবি: আরিফ জাহানএদিকে পুলিশ সুপারের এমন উদ্যোগে সাধারণ মানুষের মনে আশার সঞ্চার হলেও বসে নেই দালালচক্র। তারা ভিন্ন কৌশলে মাঠে নেমেছে বলে শোনা যাচ্ছে। কারণ বিগত দিনে বগুড়ায় এ পদে নিয়োগ পেতে দালালদের মাধ্যমে ১২ থেকে ১৪ লাখ টাকা গুনতে হয়েছে বলেও জোর গুঞ্জন রয়েছে। আর সাধারণ মানুষের সেই ধারণা পাল্টে দিয়ে জেলার পুলিশ সুপার সরকার নির্ধারিত ফি ১০০ টাকায় পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগ দিতে বদ্ধ পরিকর।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এ কার্যক্রম সফল করতে চাকরিপ্রত্যাশী সাধারণ মানুষকে নানাভাবে সচেতন করা হচ্ছে। কারণ দালালচক্র চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে টাকা হাতিয়ে নিতে নানা কৌশল অবলম্বন করবে বা করছে। এদের প্রতারণার ফাঁদ থেকে সাধারণ মানুষকে রক্ষায় সাদা পোশাকে পুলিশ মাঠে কাজ করছে।

তারা শহর থেকে শুরু করে গ্রামে গ্রামে কাজ করছেন। ইতোমধ্যেই বেশ কিছু দালালকে চিহ্নিত করা হয়েছে বলেও সংশ্লিষ্টরা বলছেন। এসব বিষয় মাথায় রেখে পুলিশ সুপারের পক্ষ থেকেই হাতেনাতে দালাল ধরার ফাঁদ পাতা হয়েছে।

শহিদুল ইসলামের নামের এক অভিভাবক বাংলানিউজকে জানান, ছেলেকে পুলিশে চাকরি করাবো এটা তার দীর্ঘদিনের ইচ্ছে। ছেলেও পুলিশের চাকরি পছন্দ করে। তাই চাকরির খবর জানার পর থেকে কয়েকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করি। কিন্তু পুলিশের চাকরি নিতে অনেক টাকা ঘুষ দেওয়ার কথা শোনায়। এতে মনটা ভেঙে যায়।

তিনি আরও জানান, গেলো দু’সপ্তাহ আগে এক আত্মীর মাধ্যমে জানতে পারলাম যোগ্যতা ও মেধা থাকলে এবার ১০০ টাকায় পুলিশের চাকরি পাওয়া যাবে। ওই আত্মীয় এ সংক্রান্ত একটা লিফলেট দেখানোর পর তার কথাটি বিশ্বাস হয়। সঙ্গে সঙ্গে ঘুষের টাকার চিন্তাও মাথা থেকে দূর হয় এ অভিভাবকের।  

বগুড়ার এসপি আলী আশরাফ ভূঁইয়া বাংলানিউজকে জানান, পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগ পেতে সরকার নির্ধারিত ফি ১০০ টাকা ছাড়া বাড়তি একটি টাকাও লাগবে না। শুধু প্রয়োজন যোগ্যতা ও মেধার। আর কোনো চাকরিপ্রত্যাশী যেন প্রতারণার ফাঁদে না পড়ে সে জন্য শুরু থেকেই পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যোগ্যতা ও মেধার ভিত্তিতে কনস্টেবল পদে পুরো নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করতে সবার সহযোগিতা কামনা করেন জেলার এসপি আলী আশরাফ।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৪ ঘণ্টা, জুন ১৭, ২০১৯
এমবিএইচ/এএটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   বগুড়া পুলিশ
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2019-06-17 15:21:58