bangla news

মনে শান্তির পরশ এনে দেয় ‘নিঝুম পার্ক’

সৌমিন খেলন, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-০৬ ৭:৫৮:৫২ পিএম
রূপকথার পরীর ভাস্কর্যের অবয়ব। ছবি: বাংলানিউজ

রূপকথার পরীর ভাস্কর্যের অবয়ব। ছবি: বাংলানিউজ

কেন্দুয়া (নেত্রকোণা) থেকে ফিরে: বিস্তৃর্ণ এলাকাজুড়ে রয়েছে সবুজের রাজত্ব। নিবিড় মায়াবী এক পরিবেশ। গাছের পাতার ফাঁকে ফাঁকে চেনা-অচেনা হাজারো পাখির মন ভোলানো কলতান। 

নিমিষে যান্ত্রিকতা ভুলিয়ে মনে শান্তির পরশ এনে দেয় ‘নিঝুম পার্ক’। পার্কটি নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার দলপা ইউনিয়নের জল্লী গ্রামে অবস্থিত।

ওই গ্রামের বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত বিচারক লতিফ আহমেদ খান পার্কটি প্রতিষ্ঠা করেন। পাঁচ বছর আগে নিজস্ব অর্থ বিনিয়োগ করে অলাভজনক এই পার্কটির প্রতিষ্ঠা করেন তিনি।

সরেজমিনে পার্কটিতে গিয়ে দেখা যায়, প্রাকৃতিক পরিবেশ নষ্ট না করে বরং পরিচর্যা করে পার্কটি তৈরি করা হয়েছে। বিনোদনের বাড়তি মাত্রা আনতে সুন্দরবনের জীবন্ত বিভিন্ন পশুপাখি যেমন- মায়াবী হরিণ, বানর, ঘোড়া, লহ্মী পেঁচা, নানা প্রজাতির কবুতর, বনমোরগ ও রাজহাঁস ইত্যাদি যোগ করা হয়েছে।

জীবন্ত এসব পশুপাখির পাশাপাশি রয়েছে আরও বিশালাকৃতির তৈরি বিভিন্ন পশুপাখির ও রূপকথার পরীর ভাস্কর্যের অবয়ব। শিশুদের খেলাধুলার জন্য রয়েছে দোলনাসহ বিভিন্ন রাইড। 

খাবারের দোকান আর বড়দের জন্য রয়েছে বিভিন্ন ডিজাইনে গড়ে তোলা রংয়ের দর্শনার্থী ছাউনি। বিশাল এই পার্কের পুরো সৌন্দর্য উপভোগ করতে যে কাউকে কয়েকবার বিশ্রাম নিতে হতে পারে।

পাখির ভাস্কর্যের অবয়ব। ছবি: বাংলানিউজ

পার্কটির প্রতিষ্ঠাতা অবসরপ্রাপ্ত বিচারক লতিফ আহমেদ খান বাংলানিউজকে বলেন, অবসরে আসার পর চিন্তা করে দেখলাম জেলায় অনেক সুন্দর সুন্দর জায়গা রয়েছে। সেগুলোতে একটু হাত লাগালেই হতে পারে দর্শণীয় স্থান। সেই পরিবেশটি গড়ে তুলতেই কলম রাখার পর হাতে তুলে নিয়েছি কোদাল। নিজের সর্বচ্চোটুকু ঢেলে দিতে চেয়েছি এই পার্কে। কোনো ব্যবসায়িক চিন্তা নয় শুধু মানুষের কথা ভেবেই গড়ে তুলেছি পার্কটি।

জামালপুর থেকে আসা দর্শণার্থী গৃহবধূ সুরাইয়া বিনতে আজম বাংলানিউজকে বলেন, বান্ধবী ইয়াসমিন গতবছর তার পরিবারসহ এসেছিলেন নিঝুম পার্কে ঘুরতে। তারপর মোবাইলে তুলে নেওয়া পার্কের ছবি দেখে আকৃষ্ট হই। সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম ঘুরে যাবো এবং এসেছি। একটি বিষয় লক্ষ্যণীয় বহু পার্ক ঘুরেছি কিন্তু এমন প্রশান্তি পাইনি কোথাও। অসম্ভব ভালো লাগার মতো এই নিঝুম পার্ক।

ময়মনসিংহের বাসিন্দা নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাইয়্যেবা সুলতানা বাংলানিউজকে জানায়, সময় পেলে পরিবার আর বন্ধু-বান্ধবীদের নিয়ে এখানে আসবো। দিনভর থেকে এখানে অনেক আনন্দ করবো। 

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৯ ঘণ্টা, জুন ০৬, ২০১৯
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   পর্যটন পর্যটক নেত্রকোণা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-06-06 19:58:52