ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ আষাঢ় ১৪২৬, ২০ জুন ২০১৯
bangla news

ঈদের আগে বেতন-বোনাসের দাবিতে প্রতিবাদ কর্মসূচি

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৫-২৪ ৯:৫২:৪১ পিএম
বেতন-বোনাসের দাবিতে বাংলাদেশ গার্মেন্ট শ্রমিক সংহতির প্রতিবাদ কর্মসূচি

বেতন-বোনাসের দাবিতে বাংলাদেশ গার্মেন্ট শ্রমিক সংহতির প্রতিবাদ কর্মসূচি

ঢাকা: ঈদের আগে সকল কারখানায় বেতন বোনাস পরিশোধ ও নিরাপদ ঈদযাত্রা নিশ্চিত করার দাবিতে আশুলিয়া, সাভার ও মিরপুরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বাংলাদেশ গার্মেন্ট শ্রমিক সংহতি।

শুক্রবার (২৪ মে) গার্মেন্ট শ্রমিক সংহতির আশুলিয়া থানা শাখার উদ্যোগে আশুলিয়া প্রেসক্লাবের সামনে বিকাল ৪টায় বাবুল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মনববন্ধন কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জুলহাসনাইন বাবু, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম শামা, কেন্দ্রীয় সদস্য এফ এম নূরুল ইসলামসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতারা।

অন্যদিকে সাভার থানা শাখার উদ্যোগে রানা প্লাজা ধসের ৭১ মাসে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয় সাভারের রানা প্লাজার সামনে। এতে সভাপতিত্ব করেন সাভার শাখার সংগঠক সেলিনা আক্তার। বক্তব্য রাখেন- সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপ্রধান তাসলিমা আখতার, সাভার শাখার সংগঠক শাহ আলম হোসাইন, রূপালী আক্তার, রানা প্লাজায় নিহত শ্রমিক ফজলে রাব্বির মা রাহেলা বেগম।

মিরপুর থানা শাখার উদ্যোগে মিরপুর ৭ নম্বর সেকশনের মিল্কভিটা মোড়ে বিকাল ৫টায় একই দাবিতে অনুষ্ঠিত হয় মানববন্ধন। মিরপুর থানা শাখার আহ্বায়ক ও কেন্দ্রীয় সমাজকল্যান সম্পাদ প্রদীপ রায়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক প্রবীর সাহা, মিরপুরের সংগঠক আসাদুল্লাহসহ অন্যান্য সংগঠকরা।

নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রতিবারের মতো শ্রমিকদের বেতন বোনাস নিয়ে গড়িমসি না করে যথাসময়ে পরিশোধ করতে হবে। বাংলাদেশের অন্যতম রপ্তানিকারক শ্রমিকরা যাতে পরিবার পরিজন নিয়ে মর্যাদার সাথে ঈদ পালন করতে পারে তার জন্য ২০ রোজার মধ্যেই সকল কারখানায় বোনাস পরিশোধ করতে হবে। এবার যেহেতু পবিত্র ঈদ উল ফিতর অনুষ্ঠিত হচ্ছে মাসের প্রথম দিকে, ফলে বাড়ি যাওয়ার আগে বাসা ভাড়া, দোকান বাকি সমস্ত কিছু পরিশোধ করেই শ্রমিকদের বাড়ি যেতে হবে।

নেতৃবৃন্দ মালিক পক্ষ ও সরকারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, শ্রমিকদের বেতন ও বোনাস নিয়ে কোন ধরনের অজুহাত তৈরি করা চলবে না। অনেক মালিক বলছেন নির্বাচনকালীন সময় অর্ডার ঠিক মতো না পাওয়ায় তাদের এইবার রমজানে বোনাস ও বেতন না দেয়ায় সমস্যা হবে। 

বক্তারা মালিকদের এই বক্তব্য এবং গোয়েন্দাসংস্থার দেওয়া তথ্যের সমালোচনা করে বলেন শ্রমিকরা ঈদের সময় পরিবার পরিজন নিয়ে একটু ভালোভাবে সময় কাটাতে অমানবিক পরিশ্রম করে। এই ঈদে তাদের কোনো অজুহাতেই বঞ্চিত করা চলবে না। এই সমস্যা সমাধানের দায় শ্রমিকদের ওপর না চাপিয়ে বিদেশি বায়ার এবং সরকারের সাথে দরকষাকষি করার সক্ষমতা বৃদ্ধির উদ্যোগ নিতে আহবান জানান বক্তারা।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫০ ঘণ্টা, মে ২৪, ২০১৯
এমজেএফ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-05-24 21:52:41