bangla news

তিন মাসে সাড়ে ২২ হাজার পর্নো সাইট বন্ধ: মোস্তাফা জব্বার

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৫-২৪ ২:৩৮:৫৯ এএম
ছবি:বাংলানিউজ

ছবি:বাংলানিউজ

ঢাকা: তিন মাসে সাড়ে ২২ হাজার পর্নো ওয়েবসাইট বন্ধ করার পাশাপাশি পর্নো ভিডিও তৈরির সাথে জড়িতদের কঠোর হস্তে দমন করতে সরকার সক্ষম হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের হয়রানি বন্ধে বাংলাদেশ প্রযুক্তিগত সক্ষমতা অর্জন করতে যাচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

মন্ত্রী বৃহস্পতিবার (২৩ মে) জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন বলে মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

ডিজিটাল মিডিয়ার ভাল ব্যবহারের পাশাপাশি অপব্যবহার বেড়েছে উল্লেখ করে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহারের ফলে কখনো কখনো শিশু ও নারীসহ অনেক মানুষ হেনস্থার শিকার হচ্ছেন। ডিজিটাল মিডিয়ায় হেনস্থার শিকার হয়ে আত্মহত্যার ঘটনাও ঘটেছে। প্রতিদিন প্রচুর অভিযোগ আসছে প্রচুর সমস্যার সমাধানও করতে হয়।

টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল মিডিয়ার নিরাপত্তায় সরকার বদ্ধ পরিকর। গত তিন মাসে সাড়ে বাইশ হাজার পর্নো সাইট বন্ধ করা হয়েছে। পর্নো ভিডিও তৈরির সাথে জড়িতদের কঠোর হস্তে দমন করতে সরকার সক্ষম হয়েছে।

'অচিরেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের হয়রানি বন্ধে বাংলাদেশ প্রযুক্তিগত সক্ষমতা অর্জন করতে যাচ্ছে। আমরা ডিজিটাল দুনিয়ায় কাজ করব এবং একই সাথে এই দুনিয়া নিরাপদও রাখব।'

মন্ত্রী নারীর নিরাপত্তা এবং ক্ষমতায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গৃহীত ও বাস্তবায়িত বিভিন্ন কর্মসূচি তুলে ধরে বলেন, সরকারের পাশাপাশি সাংস্কৃতিক অঙ্গন থেকে লড়াইটা যদি অব্যাহত থাকে তাহলে বাংলার মেয়েরা কখনো অনিরাপদ হবে না। বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়ন ও নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় একটা রূপান্তর ঘটেছে। ঘরের চার দেয়াল থেকে নারীরা এখন কর্মক্ষেত্রে বেরিয়ে এসেছে। দেশে শিক্ষার্থীদের মধ্যে শতকরা ৫৩ ভাগ এখন নারী। সংখ্যা আধিক্যের কারণেও এখন এক ধরনের নিরাপত্তা বলয় সৃষ্টি হয়েছে। মেয়েরা এখন সর্বত্র দক্ষতার সাথে সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করছেন।

পঁচাত্তর পরবর্তী দীর্ঘ ২১ বছর এবং ২০০১ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত দুঃশাসনে পিছিয়ে পড়া বাংলাদেশ গত দশ বছরে উন্নয়নের প্রতিটি সূচকে অভাবনীয় অগ্রগতি অর্জন করেছে উল্লেখ করে মোস্তাফা জব্বার বলেন, নারী ও শিশুর সাথে সাংস্কৃতিক সম্পর্ক যখন বিবেচনা করতে হয় তখন আমাদের রাষ্ট্রীয় অবকাঠামোটাও বিবেচনা করা দরকার।

বঙ্গীয় সাহিত্য-সংস্কৃতি সংসদ আয়োজিত ‘নারী নির্যাতন প্রতিরোধে সংস্কৃতির ভুমিকা’ শীর্ষক আলোচনা, স্বরচিত কবিতা পাঠ এবং আবৃত্তি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান।

বঙ্গীয় সাহিত্য-সংস্কৃতি সংসদের প্রতিষ্ঠাতা আহ্বায়ক কবি অসীম সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, কবি কাজী রোজী, ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ, বঙ্গীয় সাহিত্য-সংস্কৃতি সংসদের নির্বাহী সভাপতি কবি আসলাম সানী এবং সাধারণ সম্পাদক কবি মাসুদ পথিক বক্তব্য দেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কবি ও সাংবাদিক সোহরাব হাসান।

বাংলাদেশ সময়: ০২৩৬ ঘণ্টা, মে ২৪, ২০১৯
এমআইএইচ/এইচএমএস/এমএমএস

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-05-24 02:38:59