ঢাকা, রবিবার, ১০ ভাদ্র ১৪২৬, ২৫ আগস্ট ২০১৯
bangla news

রোহিঙ্গা ফেরাতে জাতিসংঘের ভূমিকা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-২৪ ১১:৪৪:২৬ পিএম
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ঢাকা: জাতিগত নিধনের শিকার হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের মাতৃভূমি মিয়ানমারে প্রত্যাবর্তনে জাতিসংঘকে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) সন্ধ্যায় জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাই কমিশনার ফিলিপ গ্র্যান্ডি, ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশনের (আইওএম) মহাপরিচালক অ্যান্তেনিও ভিটোরিনো এবং জাতিসংঘের জরুরি ত্রাণ ও মানবিক সহায়তা বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল মার্ক লোকক এর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতকালে এ আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জাতীয় সংসদ ভবনস্থ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে করেন তিনদিনের সফরে বাংলাদেশে আসা জাতিসংঘের ওই তিন কর্মকর্তা।

পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

সাক্ষাতকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, রোহিঙ্গাদের তাদের মাতৃভূমিতে ফেরত যেতে হবে, কীভাবে তারা ফেরত যেতে পারে আপনারা আমাদের সহায়তা করতে পারেন।

জাতিগত নিধনের শিকার হয়ে আশ্রয় নেওয়া এক মিলিয়নের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশের জন্য বড় বোঝা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কতোদিন তারা এখানে থাকবে? 

বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুর কারণে কক্সবাজারের স্থানীয় জনগণের দুর্ভোগের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, সেখানকার জনগণ এখনো আমার আহ্বানে সরকারকে সহযোগিতা করছে। স্থানীয় জনগণের ফসলি জমি ধ্বংস হচ্ছে, বন ধ্বংস হচ্ছে। কক্সবাজারের মতো পর্যটন এলাকা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের কারণে।

 

রোহিঙ্গা ইস্যুতে অব্যহত ভাবে মানবিক সহযোগিতার জন্য বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা ও বিভিন্ন দেশের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী।

মানবিক দিক বিবেচনা করে জোরপূর্বক বিতাড়িত রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুদের আশ্রয় দেয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেন জাতিসংঘের কর্মকর্তারা।

রোহিঙ্গাদের জন্য সমর্থন ও সহায়তা অব্যহত রাখা, বিশেষ করে রোহিঙ্গা শিশুদের শিক্ষা ও অন্যান্য মৌলিক চাহিদা পূরণে সহায়তার অঙ্গীকার পুর্নব্যক্ত করেন জাতিসংঘ কর্মকর্তারা।

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবর্তনে সম্মত হয়ে মিয়ানমার বাংলাদেশের সঙ্গে চুক্তি করলেও বাস্তবে কিছু না করার বিষয়টি উল্লেখ করে জাতিসংঘ কর্মকর্তারা।

সাক্ষাতের সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এম শাহরিয়ার আলম, প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব নজিবুর রহমান এবং পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হক।

বাংলাদেশ সময়: ১১৪০ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৪, ২০১৯
এমইউএম/আরআইএস/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-04-24 23:44:26