ঢাকা, শুক্রবার, ৮ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ আগস্ট ২০১৯
bangla news

নুসরাত হত্যা: জড়িত কেউ রেহাই পাবে না

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-২৩ ৭:০১:৩২ পিএম
নুসরাতের পরিবারের সঙ্গে মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী। ছবি: বাংলানিউজ

নুসরাতের পরিবারের সঙ্গে মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী। ছবি: বাংলানিউজ

ফেনী: ফেনী-৩ আসনের সংসদ সদস্য লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলায় জড়িত কেউ রেহাই পাবে না।

তিনি বলেন, কারোর যদি কোনো রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক পরিচয়ও থাকে, তদন্তে অপরাধ প্রমাণ হলে ছাড় পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। এ ঘটনাটা ধামাচাপা হয়ে যাবে, কিংবা রাজনৈতিক কারণে অন্যখাতে প্রবাহিত হয়ে যাবে, এটা আমি বিশ্বাস করি না।

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) সোনাগাজী পৌর শহরের উত্তর চরচান্দিয়ায় নুসরাতের বাড়িতে স্বজনদের সমবেদনা জানাতে গিয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের তিনি এসব কথা বলেন। 

মাসুদ চৌধুরী বলেন, নুসরাত হত্যার অন্যতম হোতা মাদ্রাসা অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলার আগের অপকর্মগুলোর কেন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। মাদ্রাসা কমিটির কোনো অবহেলা আছে কিনা, সেগুলো সুচারুভাবে তদন্ত করা হবে।

বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কমিটি আগামীতে ঢেলে সাজানো হবে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠানে যে লেভেলের শিক্ষা আছে, তাকে সে পর্যন্ত শিক্ষিত হতে হবে।

‘কোনো হাইস্কুল কিংবা মাদ্রাসাতে প্রাইমারি পার না হওয়া কেউ কমিটিতে আসবে এমনটা হবে না। হাইস্কুলের কমিটিতে থাকতে হলে তাকেও হাইস্কুল পাস হতে হবে।’

নুসরাতের পরিবারের নিরাপত্তার ব্যাপারে মাসুদ চৌধুরী বলেন, মামলাটির রায় হওয়া পর্যন্ত পরিবারটিকে নিরাপত্তা দেওয়া হবে। এ ব্যাপারে আমি ফেনী জেলা পুলিশ এবং ডিআইজির সঙ্গে কথা বলবো। 

মামলা অগ্রগতির ব্যাপারে তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) তদন্তে আমি সন্তুষ্ট। তাদের তদন্তে এখন পর্যন্ত কোনো অবহেলা চোখে পড়েনি। যদি তাদের গাফিলতি বোঝা যেতো, তাহলে আমরা অন্য লেভেলে চেষ্টা করতাম। 

মামলাটি দ্রুত বিচার আইনে নেওয়ার ব্যাপারে সংসদ সদস্য বলেন, আমরা চেষ্টা করবো, তদন্ত শেষ করে আদালতের কাছে তুলে দিতে। এছাড়া আইনমন্ত্রী বলেছেন, এ মামলা দ্রুত বিচার আইনে স্থানান্তর করা হবে। 

সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনের ব্যাপারে তিনি বলেন, তাকে সোনাগাজী থানা থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আমার কাছে তথ্য আছে, আজ পিবিআই তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকেছে। এখানে ইনফ্লুয়েন্স করার কোনো সুযোগ নেই। 

এর আগে তিনি নুসরাতের কবর জিয়ারত করে তার আত্মার মাগফেরাত করেন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন- মাসুদ চৌধুরীর সহধর্মিনী জেসমিন মাসুদ, সোনাগাজী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আজিজুল হক হিরণ, কাউন্সিলর নুর নবী লিটন, নুসরাতের বাবা এ কে এম মাওলানা মুসা মানিক, বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান, রাশেদুল হাসান রায়হানসহ জেলা ও উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতারা।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৩, ২০১৯
এসএইচডি/আরবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ফেনী
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-04-23 19:01:32