ঢাকা, রবিবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৯ মে ২০১৯
bangla news

ব্রুনেইয়ে শেখ হাসিনাকে উষ্ণ অভ্যর্থনা

মহিউদ্দিন মাহমুদ, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-২১ ১:৫৬:০০ পিএম
ব্রুনেইয়ে পৌঁছালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উষ্ণ অভিনন্দন জানানো হয়

ব্রুনেইয়ে পৌঁছালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উষ্ণ অভিনন্দন জানানো হয়

ব্রুনাই থেকে: সুলতান হাসানাল বলকিয়ার আমন্ত্রণের তিনদিনের সরকারি সফরে ব্রুনেইয়ে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিমানবন্দরে লালগালিচা সংবর্ধনা ও গার্ড অব অনার প্রদানের মাধ্যমে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানো হয়েছে শেখ হাসিনাকে।

রোববার (২১ এপ্রিল) স্থানীয় সময় বেলা আড়াইটার দিকে ব্রুনেই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সফরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গী হয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ প্রমুখ।
 
ব্রুনেই আন্তজার্তিক বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীর স্বাগত জানান দেশটির ক্রাউন প্রিন্স (যুবরাজ) আল-মুহতাদি বিল্লাহ বলকিয়া।
 
বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে লালগালিচা সংবর্ধনা এবং গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়।
 
এর আগে রোববার (২১ এপ্রিল) সকাল ৮টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-১৪০৫ ফ্লাইটে ব্রুনেই দারুস সালামের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
 
ব্রুনেই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রাষ্ট্রীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে মোটর শোভাযাত্রা সহযোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নেওয়া হয় সফরকালীন আবাসস্থল এম্পায়ার হোটেল অ্যান্ড কান্ট্রি ক্লাবে।
 
সফরকালে প্রধানমন্ত্রী ব্রুনেইয়ের সুলতান হাসানাল বলকিয়ারসহ দেশটির গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে বৈঠক করবেন। 
দেশ ছাড়ার আগে বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: পিআইডিপ্রধানমন্ত্রীর এ সফরে দুই দেশের মধ্যে কৃষি, সংস্কৃতি ও শিল্প, যুব ও ক্রীড়া, মৎস্য, পশু সম্পদ, জ্বালানি খাতসহ বিভিন্ন বিষয়ে সাতটি সমঝোতা স্মারক সই হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এছাড়া রোহিঙ্গা সংকট নিয়েও দুই দেশের মধ্যে আলোচনা হবে।
 
সফরের প্রথম দিন রোববার (২১ এপ্রিল) স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় হোটেলের বলরুমে প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন চারবারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
 
রাতে বাংলাদেশ হাইকমিশনারের দেওয়া নৈশভোজেও যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী।
 
সফরের দ্বিতীয় দিন সকাল ১১টায় ব্রুনেইয়ের সুলতান হাসানাল বলকিয়ার সরকারি বাসভবন ইস্তানা নুরুল ইমানের চেরাদি লায়লা কেনচানায় সুলতান বলকিয়া ও রাজ পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাতে মিলিত হবেন।
 
এরপর সুলতান হাসানাল বলকিয়ার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন শেখ হাসিনা। বৈঠক শেষে দুই দেশের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই হবে।
 
এদিন বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে ব্রুনেই ন্যাশনাল চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্টাস্ট্রি এবং বাংলাদেশ থেকে যাওয়া ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদের সভায় অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
 
এরপর জামে আসর মসজিদ পরিদর্শনে যাবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে আসরের নামাজ আদায় করবেন শেখ হাসিনা।
 
রাতে সুলতানের সরকারি বাসভবন ইস্তানা নুরুল ইমানে সুলতান বলকিয়ার দেওয়া নৈশভোজে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
 
সফরের শেষ দিন মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) সকালে ব্রুনেইয়ের কূটনৈতিক এলাকা জালান কেবাংসানে বাংলাদেশ হাইকমিশনের নতুন চ্যান্সেরি ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী। পরে সেখান থেকে তিনি রয়েল রেজালিয়া জাদুঘর পরিদর্শন করবেন।
 
এদিন স্থানীয় সময় বিকেল ৫টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-১৪০৬ ফ্লাইটে ব্রুনেই সফর শেষে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হওয়ার কথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওইদিন বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা পৌনে আটটার দিকে প্রধানমন্ত্রীর ঢাকায় পৌঁছানোর কথা। 
 
বাংলাদেশ সময়: ১৩৪৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ২১, ২০১৯
এমইউএম/এমএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14