ঢাকা, শনিবার, ৯ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ আগস্ট ২০১৯
bangla news

সোনাগাজীতে গৃহবধূকে গণধর্ষণ: অভিযুক্তের স্বীকারোক্তি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-১৮ ৮:৩১:৫৮ পিএম
নুর আলম

নুর আলম

ফেনী: ফেনীর সোনাগাজীর আদর্শগ্রাম এলাকায় দুই সন্তানের জননীকে গণধর্ষণের ঘটনায় আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন নুর আলম নামে এক অভিযুক্ত। 

একই ঘটনায় মোশাররফ নামে আরেকজনকে বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) আটক করেছে পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল দাস জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জাকির হোসেনের আদালতে আসামি নুর আলম অপরাধের দায় স্বীকার করে ১৬৪ দারায় জবানবন্দি দিয়েছেন।

এর আগে বুধবার (১৭ এপ্রিল) দুপুরে নুর আলম (৩৫) নামে বখাটে ওই যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মঙ্গলবার উপজেলার চরদরবেশ ইউনিয়নের আদর্শ গ্রামসহ দক্ষিণ চরদরবেশ এলাকার এক বাড়িতে এ ঘটনা ঘঠে।

ওই দিন সন্ধ্যায় ওই গৃহবধূ নিজে বাদী হয়ে নুর আলম (৩৫), মো. আপেল ও মোশারফ হোসেনসহ তিনজনকে আসামি করে সোনাগাজী মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ, স্থানীয় লোকজন ও পরিবার সূত্র জানায়, ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূ আদর্শগ্রাম এলাকার এক প্রবাসীর স্ত্রী ও দুই সন্তানের জননী। দীর্ঘদিন যাবত একই এলাকার নুর আলম, মো. আপেল ও মোশারফ হোসেন নামে তিন বখাটে যুবক তাকে বিভিন্নভাবে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে উত্ত্যক্ত করে আসছিলো।

তাদের প্রস্তাবে রাজি না হলে গৃহবধূকে অপহরণ করে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করে মেরে ফেলার হুমকি দেয় বখাটেরা। বিষয়টি ওই গৃহবধূ তার পরিবারের সদস্যদের জানান। তারা বিষয়টি সম্পর্কে বখাটেদের পরিবারকে অবহিত করেন। কিন্তু এতে কোনো লাভ হয়নি। এই নিয়ে স্থানীয়ভাবে সালিশি বৈঠকও হয়েছিলো।

গত মঙ্গলবার রাতে প্রাকৃতিক ডাকে সাড়া দিয়ে ওই গৃহবধূ ঘর থেকে বের হলে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা তিন বখাটে পেছন দিক থেকে কাপড় দিয়ে মুখ চেপে ধরে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে বাড়ির পাশে নিয়ে তাকে গণধর্ষণ করে পালিয়ে যায়।

বাংলাদেশ সময়: ২০২৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৯৮, ২০১৯
এসএইচডি/এমজেএফ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ধর্ষণ
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2019-04-18 20:31:58