ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২১ মে ২০১৯
bangla news

নরসিংদীতে সালিশ বৈঠকে হামলা, গুলিবিদ্ধসহ আহত ৫

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৩-২৩ ৯:১১:২৫ পিএম
নরসিংদী

নরসিংদী

নরসিংদী: নরসিংদীর পলাশের ভাঙ্গায় সালিশ বৈঠকে যুবলীগ সভাপতির নেতৃত্বে হামলার অভিযোগ উঠেছে। হামলায় প্রতিপক্ষের ছোড়া গুলিতে ইউপি সদস্যসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন। 

শনিবার (২৩ মার্চ) দুপুরে পলাশ উপজেলার ডাঙ্গার কেন্দুয়াবো গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

আহতরা হলেন- কেন্দুয়াবো ৯নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম বাদল, একই গ্রামের কাজল (৩৫), শাহালম (২৮), ইব্রাহীম (৩০) ও নাজিম উদ্দিন (৪৫)। এদের মধ্যে কাজল (৩৫), ইব্রাহীম (৩০) ও নাজিম উদ্দিন (৪৫) গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।
 
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কাজল বাংলানিউজকে জানায়, জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ডাঙ্গা ইউনিয়নের কেন্দুয়াবো গ্রামের বাতেনের সঙ্গে একই গ্রামের মামুনের বিরোধ চলছিল। বিষয়টি সমাধানের জন্য স্থানীয় ইউপি সদস্যের দারস্থ হয় মামুন। দুপুরে উভয়পক্ষকে নিয়ে কেন্দুয়াবো মাদরাসা মাঠে সালিশ বসে ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাদল। কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই যুবলীগ সভাপতি দেলোয়ার হোসেন দেলু ও তার ভাতিজা আরিফ সালিশের বিচারক ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম বাদলের ওপর হামলা ও এলোপাথাড়ি গুলি করে। পরে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে দেলু বাহিনীর সমর্থকরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম বাদলকে কুপিয়ে জখম করে। এসময় তাদের ছোড়া গুলিতে একজন গুলিবিদ্ধসহ পাঁচজন আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মকবুল হোসেন মোল্লা বাংলানিউজকে বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বাংলাদেশ সময়: ২১০০ ঘণ্টা, মার্চ ২৩, ২০১৯
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   নরসিংদী
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-03-23 21:11:25