ঢাকা, রবিবার, ১০ চৈত্র ১৪২৫, ২৪ মার্চ ২০১৯
bangla news

দোকানে ২টি করে গাছ না রাখলে ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন নয়

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৩-১৪ ৯:৫৩:০২ পিএম
পরিচিতি সভায় বক্তব্য রাখছেন মেয়র আতিকুল ইসলাম

পরিচিতি সভায় বক্তব্য রাখছেন মেয়র আতিকুল ইসলাম

ঢাকা: ড্রেনে মানুষ ময়লা-আবর্জনা ফেলে। এটা হতে দেওয়া যায় না। প্রতিটি দোকানে ডিএনসিসি নির্ধারিত ডিজাইনের ওয়েস্ট বিন ও দু’টি করে ফুল বা গাছের চারা রাখা বাধ্যতামূলক করা হবে, অন্যথায় ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন করা হবে না।

বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) গুলশানে ডিএনসিসির প্রধান কার্যালয়ে নতুন কাউন্সিলরদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় একথা জানান মেয়র আতিকুল ইসলাম।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) নতুন মেয়র আতিকুল ইসলামের নেতৃত্বে সুন্দর ঢাকা গড়ার প্রত্যয়ের কথা জানান ডিএনসিসির কাউন্সিলররা। 

সভায় সম্প্রসারিত এলাকার কাউন্সিলররা পুরনো ওয়ার্ডগুলোতে যে সব নাগরিক সুবিধা দেওয়া হয় তার প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করেন। 

পুরনো ওয়ার্ডের কাউন্সিলররা মেয়রের কাছে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, মশা, জলাবদ্ধতা, ফুটপাত দখলসহ বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরেন। নাগরিক সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সব কাউন্সিলর মেয়রের প্রতিটি কথা নির্দেশ মনে করে একসঙ্গে কাজ করবেন বলে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

প্যানেল মেয়র ও ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জামাল মোস্তফা বলেন, মেয়রের নেতৃত্বে আমরা সবাই মিলে ঢাকাকে সুন্দর করবো। নগরবাসীর সেবার মান বাড়াবো।

মেয়র আতিকুল ইসলাম স্বাগত বক্তব্যে মেয়র ও কাউন্সিলরদের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, আমরা একটি সুন্দর, পরিচ্ছন্ন ঢাকা শহর গড়তে এসেছি। আমাদের কাজ করতে হবে। যে দেশে বঙ্গবন্ধুর মতো মহান নেতা জন্মগ্রহণ করেছিলেন সে দেশের রাজধানী অপরিচ্ছন্ন, আবর্জনাপূর্ণ হয়ে থাকতে পারে না।

তিনি আরো বলেন, আমি উপ-নির্বাচনের সময় ডিএনসিসির বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে দেখেছি। আমাদের কাছে মানুষের প্রত্যাশা অনেক উপরে। আসুন আমরা সবাই মিলে জনগণের সেবক হই।

সমাপনী বক্তব্যে মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, জলাবদ্ধতা নিরসনে আমি ইতোমধ্যে বিভিন্ন জায়গা পরিদর্শন করা শুরু করেছি। আমরা ওয়াসাকে নিয়ে বর্ষার আগেই জলাবদ্ধতার সমাধান করবো। পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছি। ফুটপাত থেকে সব প্রতিবন্ধকতা দূর হয়ে যাবে।

মশক নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে শুক্রবার মশক কর্মীদের উদ্বুদ্ধ করতে তাদের সঙ্গে মহাখালী ডিএনসিসি মার্কেটে সভা করবেন বলে জানান মেয়র। 

তাছাড়া ছাদ বাগান বা বাসার বেলকনিতে সবুজায়ন করা হলে কর রেয়াত সুবিধা দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্দেশ্যে তিনি ‘পি অ্যান্ড আর’ - পানিশমেন্ট অ্যান্ড রিওয়ার্ডের কথা বলেন। অর্থাৎ ভালোভাবে কাজ করলে পুরস্কার আর তার ব্যত্যয় ঘটলে শাস্তির কথা বলেন। সবশেষে তিনি কাউন্সিলরদের সবাইকে সুন্দর ঢাকা গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

এর আগে  মতবিনিময় সভার শুরুতে প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক, প্রয়াত প্যানেল মেয়র মো. ওসমান গণি এবং প্রয়াত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হোসেনের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালনসহ দোয়া করা হয়। 

সভায় অন্যদের মধ্যে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল হাই, সচিব রবীন্দ্রশ্রী বড়ুয়া, প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল যুবায়ের সালেহীন, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জাকির হাসান, প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলামসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।  

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৬ ঘণ্টা, মার্চ ১৪, ২০১৯
এসএইচএস/এএ 

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14