bangla news

স্ত্রীর ওপর প্রতিশোধ নিতে শ্যালককে হত্যা 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৩-০৭ ৪:১৬:৫৩ পিএম
সংবাদ সম্মেলন। ছবি: বাংলানিউজ

সংবাদ সম্মেলন। ছবি: বাংলানিউজ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে শ্যালক হত্যায় জড়িত রফিকুল ইসলামকে (৩০) আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব-১৪)।

বুধবার (০৬ মার্চ) রাত আড়াইটার দিকে নারায়নগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। বৃহস্পতিবার (০৭ মার্চ) দুপুরে র‌্যাব-১৪’র ভৈরব ক্যাম্পের পক্ষ থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

আটক রফিকুল ইসলাম ময়মনসিংহের নান্দাইলের মো. সমির উদ্দিনের ছেলে। নিহত কিশোর ইমন (১৩) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরের বড়িকান্দি ইউনিয়নের বড়িকান্দি গ্রামের রবিউল্লা মিয়ার ছেলে।

গত ২ মার্চ বড়িকান্দির জয়কৃষ্ণ বাড়ি এলাকার খাল থেকে ইমনের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় তার আপন ভগ্নিপতি রফিকুল ইসলামকে আসামি করে হত্যা মামলা দেওয়া হয়। মামলায় ইমনকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১৪’র অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ এখতেখার উদ্দিন জানান, হত্যাকারীকে ধরতে নিরবিচ্ছিন্ন গোয়েন্দা নজরদারি চালায় র‌্যাব। ভৈরব ক্যাম্পের অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিউদ্দীন মোহাম্মদ যোবায়ের ও সিনিয়র এডি চন্দন দেবনাথ এবং র‌্যাব হেডকোয়াটার্সের গোয়েন্দা শাখার সদস্যদের সমন্বয়ে একটি অভিযানিক দল গঠন করা হয়। দলটি প্রযুক্তির সহায়তায় রফিকুল ইসলামের অবস্থান সনাক্ত করে বুধবার রাত আড়াইটার দিকে নারায়নগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় থেকে আটক করে।

রফিকুলের সঙ্গে নবীনগরের মনিরা বেগমের ২০১৩ সালে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে রফিকুল তার স্ত্রীকে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করতেন। পাশাপাশি তিনি চাঁদাবাজি, চুরি, ছিনতাই ও নেশায় জড়িয়ে পড়লে কয়েক মাস আগে মনিরা তার বাপের বাড়িতে চলে আসেন। এরজের ধরে স্ত্রীর ওপর প্রতিশোধ নিতে রফিকুল শ্যালককে হত্যা করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৬১০ ঘণ্টা, মার্চ ০৭, ২০১৯
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   র‌্যাব ব্রাহ্মণবাড়িয়া
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-03-07 16:16:53