ঢাকা, শুক্রবার, ৮ চৈত্র ১৪২৫, ২২ মার্চ ২০১৯
bangla news

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পৌঁছেছে কবি আল মাহমুদের মরদেহ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০২-১৬ ৮:৫৬:০৮ পিএম
নিজ গ্রামের বাড়ি পৌঁছেছে কবি আল মাহমুদের মরদেহ

নিজ গ্রামের বাড়ি পৌঁছেছে কবি আল মাহমুদের মরদেহ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাব ও বায়তুল মোকাররম মসজিদে জানাজার পর কবি আল মাহমুদের মরদেহ নিজ গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিয়ে আসা হয়েছে।

শনিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে অ্যাম্বুলেন্সে তার মরদেহ শহরের মোড়াইল এলাকায় কবির নিজ বাড়িতে আনা হয়।

রোববার (১৭ ফেব্রুয়ারি) জোহর নামাজের পর নিয়াজ মুহম্মদ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হবে।

>>>আরও পড়ুন...বাংলা একাডেমিতে কবি আল মাহমুদের মরদেহ

আল মাহমুদের ঘনিষ্ঠ সহচর আবিদ আজম বাংলানিউজকে বলেন, রোববার সকাল ১১টা থেকে শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য তার মরদেহ নিয়াজ মুহম্মদ উচ্চ বিদ্যালয়ে মাঠে রাখা হবে।

এরআগে, শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাত ১১টা ৫ মিনিটে রাজধানীর ধানমন্ডির ইবনে সিনা হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন কবি আল মাহমুদ। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর।

কবি আল মাহমুদের প্রকৃত নাম মীর আবদুস শুকুর আল মাহমুদ। ১৯৩৬ সালরে ১১ জুলাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার মোড়াইল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন আল মাহমুদ।

>>>আরও পড়ুন...রোববার নিজ গ্রামে শায়িত হবেন কবি আল মাহমুদ

গত ৮ ফেব্রুয়ারি হাসপাতালে ভর্তির পর ৯ ফেব্রুয়ারি কবিকে প্রথমে সিসিইউতে নেওয়া হয়। এরপর অবস্থার অবনতি হলে ওইদিন রাত সাড়ে ১২টার দিকে তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। তিনি ওই হাসপাতালের নিউরোলজি বিশেষজ্ঞ ডা. আব্দুল হাইয়ের তত্ত্বাবধানে ছিলেন। পরে ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৫ ফেব্রুয়ারি রাতে মৃত্যুর কাছে পরাজিত হন তিনি।

আল মাহমুদের প্রকৃত নাম মীর আবদুস শুকুর আল মাহমুদ। ১৯৩৬ সালের ১১ জুলাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার মোড়াইল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। দুই ভাই ও তিন বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন বড়। স্থানীয়দের কাছে আল মাহমুদ পরিচিত ছিলেন পিয়ারু মিয়া নামে।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৯৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০১৯
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ব্রাহ্মণবাড়িয়া
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14