ঢাকা, সোমবার, ৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ আগস্ট ২০১৯
bangla news

মাহফুজা হত্যায় ৪৮ ঘণ্টায় গ্রেফতার হয়নি দুই গৃহকর্মী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০২-১৩ ১২:১২:৪৪ এএম
ঘটনাস্থলে তৎপর পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা (ইনসেটে মাহফুজা চৌধুরী)। ছবি: বাংলানিউজ

ঘটনাস্থলে তৎপর পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা (ইনসেটে মাহফুজা চৌধুরী)। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: ইডেন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীন হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহভাজন দুই গৃহকর্মী রেশমা (৩০) ও স্বপ্নাকে এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাতে রাজধানীর সায়েন্সল্যাবের সুকন্যা টাওয়ারের একটি ফ্ল্যাট থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে। পুলিশ ও স্বজনদের ধারণা ছিল মাহফুজাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৭টার মধ্যে।

সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। ইসমত কাদির গামা ওইদিন নিউমার্কেট থানায় দুই গৃহকর্মীকে প্রধান আসামি করে মামলা করেন।

মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) এরপর দুইদিন পেরিয়ে গেলেও (৪৮ ঘণ্টা) গ্রেফতার হয়নি কেউ। এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলানিউজকে নিউমার্কেট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, আসামিদের গ্রেফতারের জন্য আমাদের টিম কাজ করছে। দ্রুতই আসামিদের গ্রেফতার করতে আমরা সক্ষম হবো।

এর আগে সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) ময়নাতদন্তে শেষে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক (ডিএমসিএইচ) মেডিসিন বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ বাংলানিউজকে বলেন, ‘মরদেহের একটি আঙুল ভাঙা ছিলো। তাকে (মাহফুজা) মুখ চেপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। এই হত্যাকাণ্ড একজনের পক্ষে সম্ভব হয়নি। একাধিক ব্যক্তি এই হত্যার সঙ্গে জড়িত বলে মনে হয়। মৃত নারীর ঠোঁটে, মুখে, আঙুলে ধস্তাধস্তির চিহ্ন পাওয়া গেছে।

চাঞ্চল্যকর এই মামলায় এখনও কেউ গ্রেফতার না হওবার ব্যাপারে জানতে চাইলে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার মারুফ হোসেন সরদার বাংলানিউজকে বলেন, সুকন্যা টাওয়ারে নিজের ফ্ল্যাট থেকে মাহফুজার মরদেহ উদ্ধারের পর থেকে দুই গৃহকর্মী রেশমা ও স্বপ্না পলাতক। তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। রেশমা ও স্বপ্নাকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে। খুব দ্রুতই এর রহস্য উদ্ঘাটিত হবে, আমরা সর্বাত্মক কাজ করে যাচ্ছি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা বলেন, আমরা তথ্য প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে এগিয়েছি। আশানুরূপ অগ্রগ্রতি হয়েছে এখন শুধু তাদের গ্রেফতারের পালা। নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি এই নির্মম হত্যাকাণ্ডটির ব্যাপারে আমরা নিজেরাও সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি।

মামলার এজাহার ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা বলছেন, দুই গৃহকর্মীর রুমা ওরফে রেশমার গ্রামের বাড়ি ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে চলতি ৪ জানুয়ারি থেকে সে নিহত মাহফুজা চৌধুরীর বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ শুরু করে। অপর গৃহকর্মী স্বপ্নার গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জের ইটনা থানাধীন রায়কুটি এলাকায়। গত ১৮ জানুয়ারি সে মাহফুজা চৌধুরীর বাসায় কাজে যোগ দেয়।

আলোচিত এই হত্যাকাণ্ডের পর দুই গৃহকর্মীকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব ও ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরাও অভিযান চালাচ্ছেন।

বাংলাদেশ সময়: ২৩৩৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১২. ২০১৯
ডিএসএস/এএটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   হত্যা মামলা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2019-02-13 00:12:44