ঢাকা, শুক্রবার, ৫ বৈশাখ ১৪২৬, ১৯ এপ্রিল ২০১৯
bangla news

মাসোহারা না দেওয়ায় শ্রমিকের পা ভাঙলো সন্ত্রাসীরা

সাভার করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০১-১৯ ৯:৫৫:০২ পিএম
হাসপাতালে ভর্তি আরফান। ছবি: বাংলানিউজ

হাসপাতালে ভর্তি আরফান। ছবি: বাংলানিউজ

আশুলিয়া (ঢাকা): সাভারের আশুলিয়ায় মাসোহারার টাকা না দেওয়ায় আরফান (৪৫) নামে এক পোশাক শ্রমিকের পা ভেঙে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। 

শনিবার (১৯ জানুয়ারি) বিকেলে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় আরফানকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তাকে মারধরে অভিযুক্তরা হলেন- বাবু (৩৪), তুষার (৩৫), তুহিন (৩৫), সাইফুল (৩৩) ও এমরান (৩২)। তারা জামগড়া এলাকার একটি ডিস ব্যবসার অফিসে কাজ করেন।

আরফানের চাচাতো ভাই রাজু আহম্মেদ বাংলানিউজকে বলেন, আরফান জামগড়া এলাকায় ভাড়া বাড়িতে থেকে স্থানীয় এক্সসিলেন্ট সোয়েটার কারখানার নিটিং সেকশনে কাজ করেন। প্রতিদিনের মতো শনিবার দুপুরের খাবার শেষে কর্মস্থলের উদ্দেশে রওনা হন। পথে হিরন গার্মেন্টেসের সামনে পৌঁছালে সন্ত্রাসীরা তার গতিরোধ করে। এসময় সন্ত্রাসীরা আরফানের কাছে মাসোহারা হিসেবে ৫ হাজার টাকা দাবি করে। আরফান দিতে রাজি না হলে সন্ত্রাসীরা তার ওপর হামলা করে। পরে তাকে পাশের একটি বেকারির ভেতরে নিয়ে গিয়ে লোহার রড ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে ডান পা ভেঙে রাস্তায় ফেলে রাখে। তখন তাকে উদ্ধার করে নারী ও শিশু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

রাজু আরও বলেন, ডিস ব্যবসায়ীর ওই স্টাফরা এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। জামগড়া এলাকার পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বেতন পেলেই সন্ত্রাসীরা শ্রমিকদের কাছ থেকে প্রতি মাসে ভয় দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নেয়। আমার ভাই টাকা না দেওয়ায় তাকে হাতুড়ি পেটা করে ডান পা ভেঙে দিয়েছে। আরফান তার পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। তার আয়ের ওপর পরিবারের সদস্যরা নির্ভরশীল।

আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিজাউল হক দিপু বাংলানিউজকে বলেন, রাত ৮টার দিকে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এর আগে, বিকেলে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পুলিশ। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৯, ২০১৯
এনটি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14