ঢাকা, রবিবার, ৮ বৈশাখ ১৪২৬, ২১ এপ্রিল ২০১৯
bangla news

মেঘনায় ট্রলার ডুবি: উদ্ধারকাজ চাঁদপুরে স্থানান্তর

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০১-১৯ ৭:৪৪:২৩ পিএম
মেঘনায় ট্রলার ডুবি

মেঘনায় ট্রলার ডুবি

মুন্সিগঞ্জ: মুন্সিগঞ্জের মেঘনায় ট্রলার ডুবির পঞ্চম দিনে নিখোঁজ ট্রলার ও ২০ শ্রমিকদের সন্ধান এখনও পাওয়া যায়নি। তাই উদ্ধারকাজ চাঁদপুরের মেঘনা অংশে রোববার (২০ জানুয়ারি) সকাল থেকে শুরু করবে সংশ্লিষ্ট উদ্ধারকারীরা।

শনিবার (১৯ জানুয়ারি) সকাল থেকে উদ্ধারকাজ শুরু হয়। সারাদিন অনেক খোঁজাখুঁজি করে সন্ধান না পাওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নেয় জেলা প্রশাসন।

** মেঘনায় ট্রলার ডুবির ৫ম দিনেও চলছে উদ্ধারকাজ

জানা যায়, পুলিশ, নৌ-পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, কোস্টগার্ড, নৌ-বাহিনীর ডুবুরীদল ও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) সদস্যরা উদ্ধারকাজে অংশ নেয়। প্রত্যয়, দুর্জয়, অগ্নি শাসক উদ্ধারকারী জাহাজ হিসেবে কাজ করে।

মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রশাসক (ডিসি) সায়লা ফারজানা বাংলানিউজকে বলেন, মুন্সিগঞ্জ-গজারিয়া অংশের ৪ কিলোমিটার জুড়ে উদ্ধার অভিযান চালনা করা হয়। কোথাও নিখোঁজ শ্রমিক ও ট্রলারের সন্ধান পাওয়া যায়নি। তাই রোববার থেকে চাঁদপুর জেলার মেঘনা নদীর অংশে এ অভিযান চলবে। 

গত পাঁচদিন যারা এ উদ্ধারকাজে অংশ নেয় তারাই সেখানে যাবেন বলে জানা যায়।

এছাড়া দুপুরের ঘটনাস্থলে গিয়ে ডিসি সায়লা ফারজানা বলেন, নয় সদস্য বিশিষ্ট গঠিত তদন্ত কমিটি কাজ করছে। নিখোঁজ ট্রলারের সারেং (হাবিব) এর গ্রামের বাড়ি ঠিকানা পাওয়া গেছে। পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। শুনা যাচ্ছে ওই ট্রলারের সারেং পরিবারসহ পলিয়ে গেছে।

গজারিয়া নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মিজানুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, রোববার ষাটনল মতলব উত্তর চাঁদপুর এলাকায় উদ্ধারকাজ চালাবে। বেঁচে যাওয়া শ্রমিকদের দেখানো ঘটনাস্থলে খোঁজাখুঁজি করেও কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। নির্দিষ্ট করে শ্রমিকরা ঘটনাস্থল চিহ্নিত করতে না পারায় কিছু পাওয়া যাচ্ছে না।

গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোবাশশেরুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, মেঘনা নদীর মুন্সিগঞ্জ-গজারিয়া অংশে উদ্ধার তৎপরতা চালালেও কোন ফলাফল আসেনি। উদ্ধারকাজে বিভিন্ন টেকনোলজি ব্যবহার করা হয়। নৌ-পরিবহণ কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। রোববার থেকে চাঁদপুর অংশের মেঘনা নদীতে এ অভিযান চালনা করা হবে। বিআইডব্লিউটিএ ও নৌ-বাহিনী তাদের ইউনিট নিয়ে সেখানে কাজ করবে।

তিনি বলেন, তদন্ত কমিটিকে কোনো সময় সীমা বেধে দেওয়া হয়নি। বর্তমানে ট্রলার চালক পলাতক রয়েছে। কোথায় ডুবে গিয়েছে ট্রলার, এসব বিষয়ে তথ্য দিতে অসামঞ্জস্যপূর্ণ বক্তব্য দেওয়া হচ্ছে।

গত ১৫ জানুয়ারি ভোর ৪টায় মেঘনায় মালবাহী জাহাজের সঙ্গে ধাক্কায় জাকির দেওয়ান নামে মাটি বোঝাই একটি ট্রলার ডুবে যায়। এসময় ৩৪ জন শ্রমিকের মধ্যে ১৪ জন সাঁতরে তীরে উঠতে পারলেও নিখোঁজ রয়েছে ২০ শ্রমিক। ট্রলার ডুবির দিন কোনো উদ্ধারকাজ চালানো হয়নি। পরদিন বুধবার সকাল থেকে উদ্ধারকাজ শুরু হলেও এখন পর্যন্ত কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৯, ২০১৯
জিপি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14