[x]
[x]
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৭ চৈত্র ১৪২৫, ২১ মার্চ ২০১৯
bangla news

ছোট্ট এক জলাশয়ের গল্প

ওহী আলম, নোবিপ্রবি করেপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০১-১১ ১১:৩২:১৯ এএম
ময়নার দ্বীপে অতিথি পাখি। ছবি: বাংলানিউজ

ময়নার দ্বীপে অতিথি পাখি। ছবি: বাংলানিউজ

নোবিপ্রবি: কুয়াশার চাদরে জড়ানো সকাল, হিম শীতল বাতাসের সঙ্গে ভেসে আসা কিচিরমিচি আওয়াজ যেন ছোট্ট এক জলাশয়ের গল্প বলে। জলাশয়টির নাম ‘ময়নার দ্বীপ’। শীতকালে যে জলাশয়ে উচ্ছ্বাস তুলে অতিথি পাখির দল। হাজার হাজার মাইল পথ পাড়ি দিয়ে একটু উষ্ণতার জন্য এখানে আসে এসব পাখি।

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) বিবি খাদিজা হলের পাশেই ময়নার দ্বীপ। লাল ইটের রাস্তা পার করলেই দেখা মেলে ময়নার দ্বীপের অতিথি পাখিদের। এ সময় ক্যাম্পাস যেন অন্য এক রূপ ধারণ করে। মুগ্ধতার এক রূপ। প্রতিটা মুহুর্তই যেন নতুন। 

শীতের সকাল অথবা পড়ন্ত বিকেল উপভোগ করতে প্রায়শই এখানেই দেখা মিলে শিক্ষার্থীদের। দল বেধে তারা পাখি দেখতে আসে, এরপর সেখানে চলে আড্ডা। 

অনার্স শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী সাহিদা ইসলাম অধরা বাংলানিউজকে জানান, এখানে শীতকাল বেশ উপভোগ্য। নানা রকম পাখি আসে আমাদের ক্যাম্পাসে। ব্যাপারটা আমাদের আনন্দ দেয়। তাছাড়া পাখিগুলো এখানে বেশ নিরাপদে থাকতে পারে।

ময়না দ্বীপ। ছবি: বাংলানিউজ

খণ্ডকালীন সব স্থিরচিত্র ধারণ করতে ক্যাম্পাসের ছবির কারিগররাও বাদ যান না। তাদেরও ভিড় জমে এখানে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফটোগ্রাফি ক্লাবের অন্যতম সদস্য আশরাফুল ইসলাম শিমুল বাংলানিউজকে বলেন, বর্ষার শেষে শীতের আগমনে ময়নারদ্বীপ মুখরিত হয়ে উঠে অতিথি পাখির ঝাঁকে। ক্যামেরা নিয়ে ছুঁটে চলতে চলতে পাখির কলরবে মুখরিত প্রান্তর ধরে হেঁটে যেতে যেতে তুলে রাখি নোবিপ্রবির এ অবারিত মনোহরা স্নিগ্ধ সৌন্দর্যকে।

ময়নার দ্বীপে বেশির ভাগ পাখিই হাঁস জাতীয়। বিচিত্র সব নাম আর অপূর্ব রূপ তাদের। একসময় শীত শেষ হয়। সবটুকু মুগ্ধতা ছড়িয়ে পাখিগুলোও বিদায় জানায় প্রকৃতিকে।

বাংলাদেশ সময়: ১১২৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১১, ২০১৯
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   নোয়াখালী
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache