[x]
[x]
ঢাকা, শনিবার, ৫ কার্তিক ১৪২৫, ২০ অক্টোবর ২০১৮
bangla news

পদ্মায় পানি কমলেও ধস নেমেছে শহর রক্ষা বাঁধে

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৯-২৫ ৩:৪৬:০৪ পিএম
শহর রক্ষা বাঁধ, ছবি: বাংলানিউজ

শহর রক্ষা বাঁধ, ছবি: বাংলানিউজ

রাজশাহী: পানির উচ্চতা প্রত্যাশার চেয়েও বেশি কমেছে রাজশাহীর পদ্মায়। কিন্তু শঙ্কার কথা হচ্ছে পানি কমায় হঠাৎ করেই ধস নেমেছে শহর রক্ষা বাঁধে।

বর্তমানে জিও ব্যাগ (বালুভর্তি বস্তা) ফেলে ধস ঠেকানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে সংস্কারের এক বছর না হতেই বাঁধে ধস নামায় ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন নদী পাড়ের মানুষ।

মঙ্গলবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজশাহী শহর রক্ষা বাঁধের শ্রীরামপুর এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, পাড়ের মাঝমাঝি অংশে ধস নেমেছে। ধস ঠেকাতে সিসি ব্লক বসানে এ বাঁধের নিচের অংশে জিও ব্যাগ ফেলা হয়েছে। শহর রক্ষা বাঁধের টি-গ্রোয়েন এলাকায় অর্থাৎ পুলিশ লাইনের সামনের অংশে এ ধস নেমেছে।

অথচ বাঁধের এ অংশটি নয় মাস আগেই সংস্কার করা হয়েছিল। কিন্তু বছর না ঘুরতেই স্রোতে তোড়ে তলদেশ থেকে সিসি ব্লকগুলো নদী গর্ভে নেমে যেতে শুরু করেছে। ফলে পানি কমলেও পাড় ধসে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে নদীর পাড়ের মানুষ ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন। তাদের অভিযোগ গত শুষ্ক মৌসুমে এ সংস্কার কাজ ছিল অতি নিম্নমানের। তাই বছর না যেতেই শহর রক্ষা বাঁধে ধস নেমেছে।

শ্রীরামপুর এলাকার অধিবাসী আবদুস সাত্তার বাংলানিউজকে বলেন, দুই বছর আগের শহর রক্ষা বাঁধের টি-গ্রোয়েনে ফাটল দেখা দেয়। ওই সময় ফাটল দিয়ে পানি ঢুকতে শুরু করে। পরে জিও ব্যাগ ফেলে ওই বছর কোনো রকমে বাঁধ রক্ষা করা হয়। এর পরে গত শুষ্ক মৌসুমের কোটি টাকা ব্যয়ে শহর রক্ষা বাঁধের এ পয়েন্টটি সংস্কার করা হয়। পাড় বেঁধে সিসি ব্লক বসানো হয়। কিন্তু কাজের মান খারাপ হওয়ায় এক বছর না যেতেই আবারও নদীপাড়ে ধস নেমেছে। পানি কমায় সিসি ব্লক খুলে পড়ছে।
শহর রক্ষা বাঁধের উপর বিপদ সংকেতসূচক (লাল পতাকা) টানিয়ে রাখা হয়েছে, ছবি: বাংলানিউজএদিকে, পদ্মার পানি দ্রুত গতিতে কমতে থাকায় ওই এলাকায় ভাঙনের তীব্রতাও বাড়ছে। ফলে ধস নামা এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) কয়েকদিন ধরে বিপদ সংকেতসূচক লাল পতাকা টানিয়ে জিও ব্যাগ ডাম্পিং করেছে। বর্তমানে বাঁধে না ওঠার জন্য দর্শনার্থী পর্যটক ও স্থানীয়দের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে পাউবো। তবে এ নিষেধাজ্ঞা মানা হচ্ছে না। কোনো পাহারার ব্যস্থা না থাকায় সকাল ও বিকেল বাঁধে সাধারণ মানুষের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এতে ঝুঁকি পড়েছে টি-গ্রোয়েন। 

রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে পাওয়া তথ্যানুযায়ী এর আগে ২০১৫ সালের বন্যার সময় থেকেই টি-গ্রোয়েনের পশ্চিমাংশের এলাকাটিতে ভাঙন শুরু হয়েছিল। ফলে বছর বছর জিও ব্যাগ ফেলে বাঁধটি অস্থায়ীভাবে রক্ষা করা হয়। তবে গত বন্যা মৌসুমে বাঁধের টি-গ্রোয়েন এলাকার পশ্চিমাংশের কয়েকশ’ মিটার এলাকায় ব্যাপক ভাঙন শুরু হয়। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে জরুরি ভিত্তিতে ভাঙন প্রতিরোধে প্রকল্প নেওয়া হয়।

পরে শুষ্ক মৌসুমে বন্যার পানি নেমে গেলে এক কোটি ৪৫ লাখ টাকা ব্যয়ে শহর রক্ষা বাঁধ রক্ষার ওই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করে পাউবো। কাজটি ২০১৭ সালে শুরু হয়ে চলতি বছরের মার্চে শেষ হয়। এর আওতায় পাড় বেঁধে সিসি ব্লক বসিয়ে রাজশাহী শহর রক্ষা বাঁধের দেড়শ’ মিটার এলাকা প্রতিরক্ষা কাজ শেষ করা হয়। প্রকল্পের আওতায় সিসি ব্লক ও জিও ব্যাগ ফেলে নদী তীর প্রতিরক্ষার কাজ করা হলেও এর মান নিয়ে শুরু থেকেই প্রশ্ন তোলেন এলাকাবাসী। কিন্তু এ অভিযোগ আমলে নেয়নি পাউবো।

অভিযোগ প্রশ্নে রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোকলেসুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন তোলার কোনো সুযোগ নেই। কারণ প্রকল্প অনুমোদনের পর টাস্কফোর্সের মাধ্যমে তা বাস্তবায়ন করা হয়।
শহর রক্ষা বাঁধ, ছবি: বাংলানিউজঠিকাদার কাজ করলেও টাস্কফোর্স সেই কাজের তদারকি করে। তাদের সুপারিশের ভিত্তিতেই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে টাকা পরিশোধ করা হয়। 

তাই এখানে কাজের মানের কোনো হেরফের হওয়ার আশঙ্কা থাকে না। এখন যেটা হয়েছে সেটা দুর্ঘটনাই বলা যায়। কারণ এবার হু হু করে পানি বাড়ছিল পদ্মায়। ধারণা করা হচ্ছিল কয়েক বছর পর এবার বিপদসীমা অতিক্রম করবে। কিন্তু গত ১৭ সেপ্টেম্বরের পর আর পানি বাড়েনি। এরপর থেকে পানি কমতে থাকে। আর এতটাই দ্রুত কমছে যে তার প্রভাবে নদী পাড়ে ভাঙতে শুরু করেছে। গত ১৭ সেপ্টেম্বর রাজশাহীতে পদ্মা নদীর পানির উচ্চতা ছিল ১৭ দশমিক ৩৪ সেন্টিমিটার। এখানে বিপদসীমা ১৮ দশমিক ৫০ সেন্টিমিটার। ফলে বিপদসীমা ছুঁই ছুই করছিল পদ্মা। সেখানে ২৫ সেপ্টেম্বর দুপুর ১২টায় পানির উচ্চতা ছিল ১৪ দশমিক ৯৫ সেন্টিমিটার। ফলে ২ দশমিক ৩৯ সেন্টিমিটার পানি কমেছে। 

পানি কমার এ গতি অস্বাভাবিক। ফলে নদী তীরের এ অংশ সামান্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে এ নিয়ে আশঙ্কার কিছু নেই। ভাঙন প্রতিরোধে সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলেও দাবি করেন পাউবোর এ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৩ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮
এসএস/ওএইচ/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   রাজশাহী নদী ভাঙন
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache