[x]
[x]
ঢাকা, শুক্রবার, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৬ নভেম্বর ২০১৮
bangla news

অফিস করলেও পুলিশ খুঁজে পাচ্ছে না দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৮-১৮ ৯:৩৪:০৮ এএম
দণ্ডপ্রাপ্ত আফরিন জামান লিনা। ছবি: বাংলানিউজ

দণ্ডপ্রাপ্ত আফরিন জামান লিনা। ছবি: বাংলানিউজ

খুলনা: সাজাপ্রাপ্ত খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বিভাগের অফিস সহকারী আফরিন জামান লিনাকে খুঁজে পাচ্ছে না খুলনার দৌলতপুর থানা পুলিশ। 

একটি চেক ডিজঅনার মামলায় মুন্সীগঞ্জের একটি আদালত আসামি লিনাকে ৪ মাসের কারাদণ্ড দেন। পাশাপাশি তাকে জরিমানা করা হয়। 

আদালতের ওই সাজা রায়ের ৩ মাস পেরিয়ে গেলেও তাকে গ্রেফতার করতে পারছে না পুলিশি। পুলিশ তাকে না পেলেও তিনি দিব্যি কর্মস্থল  খুবিতে নিয়মিত অফিস করছেন। 

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, সাজাপ্রাপ্ত আফরিন জামান লিনা খুলনার দৌলতপুর থানার মহেশ্বপাশা কুয়েট এলাকার কামরুজ্জামান কুদ্দুসের মেয়ে। খুবিতে চাকরিরত অবস্থায় লিনা বিদেশে পাঠানোর কথা বলে মুন্সীগঞ্জ জেলা শহরের মাঠপাড়া এলাকার শিহাবুল হাসানের কাছ থেকে ৩ লাখ ২০ হাজার টাকা নেন। 

পরে বিদেশ পাঠাতে ব্যর্থ হলে শিহাবুল টাকা ফেরত চান। এক পর্যায়ে তাকে ৩ লাখ ২০ হাজার টাকার একটি চেক দেন লিনা। কিন্তু অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ওই চেকটি ডিজঅনার হয়। 

এ ঘটনায় ২০১৬ সালের ১২ এপ্রিল শিহাবুল বাদী হয়ে মুন্সীগঞ্জের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে লিনাকে আসামি করে একটি মামলা করেন। পরবর্তীতে মামলাটি মুন্সীগঞ্জের দ্বিতীয় যুগ্ম জেলা আদালতে স্থানান্তরিত হয়। 

মামলার শুনানি ও সাক্ষগ্রহণ শেষে ওই আদালতের বিচারক শরীফুল আলম ভূঁঞা ২০১৮ সালের ১৭ মে আসামি লিনাকে ৪ মাসের কারাদণ্ড দেন। একই সঙ্গে তার ৩ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। 

মামলার রায়ের ৩ মাস পেরিয়ে গেলেও খুবির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বিভাগের অফিস সহকারী সাঁজাপ্রাপ্ত লিনা গ্রেফতার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মামলার বাদী শিহাবুল হাসান। তার দাবি, মামলার সাজাপ্রাপ্ত হয়েও লিনা দিব্যি কর্মস্থলে উপস্থিত হচ্ছেন নিয়মিত। কিন্তু পুলিশ অদৃশ্য কারণে তাকে গ্রেফতার করছে না। 

যোগাযোগ করা হলে দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মোস্তাক আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, লিনার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে। তাকে ধরতে বেশ কয়েকবার তার বাড়ি ও অফিসে গেলেও পাওয়া যায়নি। খোঁজ-খবর নিয়ে জেনেছি উনি এখানে থাকেন না, ঢাকায় থাকেন। 

তবে খুবির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক শেখ শারাফাত আলী বাংলানিউজকে বলেন, লিনাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে প্রশাসন ব্যবস্থা নেবে। তবে লিনা অফিস করেন। 

বাংলাদেশ সময়:  ১৯২৫ ঘণ্টা, আগস্ট ১৮, ২০১৮
এমআরএম/এমএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   খুলনা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db