bangla news

ঈদে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে ভোগান্তির আশঙ্কা

সাজ্জাদ হোসেন, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৮-১৭ ৪:৩২:০৭ এএম
অল্প সংখ্যক ফেরি চলাচল করছে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে।

অল্প সংখ্যক ফেরি চলাচল করছে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে।

মুন্সিগঞ্জ: দক্ষিণবঙ্গের ২১টি জেলার প্রবেশদ্বার মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুট। আসন্ন ঈদুল আজহায় ঘরমুখো লাখো মানুষ ঈদ আনন্দ উপভোগ করতে পদ্মা পাড়ি দেবে। এই নৌরুটের প্রধান সমস্যা নাব্যতা সংকট। 

বিগত বছরেও ঈদুল আজহায় নাব্যতা সংকটের কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। অনেক যাত্রী ঘাট এলাকায় ঈদ উদযাপন করেছেন আবার ফিরেও গেছেন। এবারের ঈদেও নাব্যতা সংকটের কারণে দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুট।  
 
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বর্ষা মৌসুমে প্রতিবছর পদ্মার পানি প্রবাহ বেড়ে যায়। সঙ্গে বয়ে নিয়ে আসা পলি জমে উচ্চতা বেড়ে যায় ডুবচরের। বিপুল পরিমাণ পলি জমছে যা ড্রেজিং করেও সরানো যাচ্ছে না। পদ্মার তীব্র স্রোতের কারণেও ঠিকভাবে ড্রেজিং কার্যক্রম পরিচালনা করা যাচ্ছেনা। নয়টি ড্রেজার দিয়ে চলছে পদ্মায় ড্রেজিং চ্যালেঞ্জ। ১ জুলাই থেকে সাতটি ড্রেজার দিয়ে ৩৫ লাখ ঘনমিটার পলি অপসারিত হওয়ার লক্ষ্য নিয়ে কাজ শুরু করে এবং এখন পর্যন্ত পাঁচ লাখ ঘনমিটার অপসারিত হয়েছে ।

বিআইডব্লিউটিসি’র শিমুলিয়া ঘাটের উপ-মহাব্যবস্থাপক শাহ মো. খালেদ নেওয়াজ বাংলানিউজকে বলেন, ন্যাচারাল একটি চ্যানেল দিয়ে বর্তমানে ফেরি চলাচল করছে। যদি সচল হয় সেক্ষেত্রে সবগুলো ফেরি নৌরুটে চলবে। চ্যানেলে ড্রেজিংয়ের কাজের জন্য রাতে দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি বন্ধ রাখা হচ্ছে। চ্যানেলে ফেরি চালানোর জন্য উপযোগী গভীরতা নেই। তাই ছোট ফেরিগুলো ধারণ ক্ষমতার কম লোড নিয়ে ঘাট থেকে ছেড়ে যাচ্ছে। হালকা, ছোট গাড়িগুলো ফেরিতে বহন করে যাতায়াত করছে। গত ২৪ ঘণ্টায় শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী দুই ঘাট মিলিয়ে উভয় রুটে ৪৩টি বাস, ১০৬টি ট্রাক, ১১৫০টি ট্রাক পার করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ড্রেজিংয়ের কাজে ব্যবহৃত পাইপের কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে রাতে ফেরি বন্ধ থাকে। বুধবার (১৫ আগস্ট) রাত থেকে ফেরি রাতে চলছে। শনিবার (১৮ আগস্ট) থেকে ফেরি চলাচলের উপযোগী হবে কিনা সেই বিষয়ে জানানো হবে। ঈদের আগে যদি নৌরুটে নাব্যতা সংকট নিরসন না হয় তাহলে কে-টাইপ ও মাঝারি ফেরি দিয়েই হালকা ও ছোট গাড়ি পারাপার করবে।
 
মাওয়া নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ কর্মকর্তা মো. সিদ্দিকুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, ঘাট এলাকায় পণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। মাইকিং করে এসব বিষয় প্রতিদিন জানানো হচ্ছে। ঘাট এলাকায় যেসব গাড়ি আসছে তার বেশিরভাগ যাত্রীবাহী। 

বিআইডাব্লিউটিএ’র ড্রেজিং বিভাগের প্রকৌশলী সূত্র জানান, পদ্মা সেতু প্রকল্পের সিনোহাইড্রো’র দুইটি ড্রেজার পলি অপসারণের জন্য কাজ করতে বলা হয়েছিল। ঘণ্টা অনুযায়ী ও মেশিন বন্ধ থাকলেও বিল দেওয়ার জন্য আর হয়নি।
 
লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মনির হোসেন বাংলানিউজকে জানান, ঈদের আগে যাত্রীদের যাত্রা নিরাপদ ও আরামদায়ক করতে চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ড্রেজিং এর মাধ্যমে নাব্যতা সমস্যা নিরসন করে ঈদের আগে নৌরুটে ভোগান্তি যাতে না হয় সেই লক্ষে কাজ করা হচ্ছে। আগামী ২-৩ দিনের মধ্যে ড্রেজিং করে নাব্যতা সংকট দূর করা যাবে।
 
বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহী প্রকৌশলী (ড্রেজিং) এ এসএম আরেফিন বাংলানিউজকে বলেন, পূর্ব পরিকল্পনা ছিলো বলেই ২৬ মে থেকেই ড্রেজিং শুরু হয়। ১২ জুলাই থেকে বিকল্প চ্যানেল দিয়ে ফেরি চলছিল। এখন মাত্রাতিরিক্ত পলি চ্যানেলে এসে পড়েছে। গত বছরের অভিজ্ঞতা অনুযায়ী এবার ৩৫ লাখ ঘনোমিটার পলি অপসারণ করার সিদ্ধান্ত হয়। যেসব ড্রেজার আছে সেগুলো ক্ষমতাসম্পন্ন এবং ড্রেজার দিয়েই শুধু পলি অপসারিত হবে তা নয়। প্রাকৃতিক একটি বিষয় এটি। সবকিছু ঠিক থাকলে এবং পলি আসার হার যদি কম থাকে তাহলে দুই দিনের মধ্যে নাব্যতা সংকট নিরসন হবে।  
 
বিআইডব্লিউটিএ’র অতিরিক্ত প্রকৌশলী সাইদুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, ১০ আগস্ট যখন ফারাক্কা বাঁধ খুলে দেওয়া হলো তখন স্রোতের পরিমাণ বেড়ে গেলো। স্রোতের পাশাপাশি লৌহজং টার্নিং পয়েন্টে থাকা ডুবচর ওয়াশআউট হয়ে পতিত হওয়ার পর বিশাল আকৃতির প্রাকৃতিক দুর্যোগ হয়ে গেলো। আগে যেখানে পানির গভীরতা ছিল ১১-১২ ফুট, সেখানে হয়ে যায় ৪-৫ ফুট। বর্তমানে চ্যানেলে ৯টি ড্রেজার পলি অপসারণে কাজ করছে। 
 
বিআইডব্লিউটিএ’র উপ-পরিচালক এম এম আজগর আলি বাংলানিউজকে জানান, তীব্র স্রোত ব্যহত করছে ড্রেজিং কার্যক্রমকে। ৫-৬ নট স্রোতের মধ্যে ড্রেজারগুলো দিয়ে ড্রেজিং কার্যক্রম চালু রাখা যায়না। এর কারণ হলো ফ্লোটিং পাইপ যুক্ত থাকে, যা স্রোতের কারণে যথাযথভাবে রাখা সম্ভব হয়না। ড্রেজিং করেও উপযোগী গভীরতা রাখা যাচ্ছে না।

বাংলাদেশ সময়: ১৪১৮ ঘণ্টা, আগস্ট ১৭, ২০১৮
এনটি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2018-08-17 04:32:07