bangla news

রেলই যে এখন ভরসা!

রহমান মাসুদ, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৮-০৫ ২:১৪:০০ এএম
তিল ধারনের ঠাঁই নেই ট্রেনে/ফাইল ছবি

তিল ধারনের ঠাঁই নেই ট্রেনে/ফাইল ছবি

ঢাকা: নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলন ও মালিক-শ্রমিকদের ধর্মঘটে স্থবির যোগাযোগ ব্যবস্থায় কিছুটা গতি ধরে রেখেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। সারাদেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রায় স্থবির। তাই রাজধানীর আশপাশ বা শহরতলীর মানুষের কর্মস্থলে আসা বা বাসায় ফেরার শেষ অবলম্বন হয়েছে এই রেল। 

রোববার (০৫ আগস্ট) সকাল সাতটা থেকে নয়টা পর্যন্ত রাজধানীর বিমানবন্দর স্টেশনে ঢাকা অভিমুখী ট্রেনগুলো দেখে বোঝার উপায় নেই, এগুলো বিশ্ব ইস্তেমা ফেরত নাকি ঈদযাত্রার কোনো ট্রেন!

প্রতিটি ট্রেনেরই ছাদ ছিল যাত্রীতে ঠাসা, ভেতরে অবস্থা সহজেই অনুমেয়। বৃষ্টির চোখ রাঙ্গানো ও দুর্ঘটনার আশঙ্কাকে দূরে রেখে জীবন হাতে নিয়ে মানুষ আশ্রয় খুঁজছে। কেবল ছাদতো নয়ই, কোনো কামরাতেও নেই তিল ধারনেরই ঠাঁই। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষ ঝুলছে ট্রেনের পাদানিতে হাতল ধরে।

রেলস্টেশনে টিকিটপ্রত্যাশী যাত্রীদের সারি/ছবি: বাংলানিউজসকাল নয়টায় আখাউড়া থেকে ছেড়ে আসা তিতাস কমিউটার ট্রেনটি এসে দাঁড়ায় বিমানবন্দর স্টেশনে। এর শেষ বগিতে উঠার চেষ্টা করে অনেকটাই গলদগর্ম হলাম। এরপর সহযাত্রীদের সহযোগিতায় কোনো রকম স্থান হলো কামরার দরজায়। 

সেখানেই কথা হচ্ছিলো বাংলাদেশ ব্যাংককর্মী শাহাদাত হোসেনের সঙ্গে। তিনি বলছিলেন, টঙ্গি থেকে রিকশায় করে বিমানবন্দর স্টেশনে এসে প্রতিদিন কমলাপুর হয়ে অফিস করছেন। কিন্তু সব সময়ই ট্রেনে ওঠা সম্ভব হয়না। কখনো কখনো ট্রেনে ওঠা কঠিন হয়ে পড়ছে। একবার মিস হলে পরের ট্রেনে যেতে হচ্ছে।

আবার ব্যবসায়ী নুরুজ্জামানের মতে, ট্রেনই এখন হয়ে উঠেছে নগরীতে আসা মানুষের একমাত্র ভরসা। তাই জয়দেবপুর, টঙ্গি, বিমানবন্দর, নারায়ণগঞ্জের মানুষের কর্মস্থলে আসার অবলম্বন হয়েছে এ ট্রেন।

বাংলাদেশ সময়: ১২০৮ ঘণ্টা, আগস্ট ০৫, ২০১৮
আরএম/এসএইচ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ট্রেন সার্ভিস ধর্মঘট
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2018-08-05 02:14:00