[x]
[x]
ঢাকা, শনিবার, ৬ আশ্বিন ১৪২৫, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
bangla news

সিলেটে ৫ লক্ষাধিক শিশু খাবে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৭-১২ ১১:৪১:৩৬ এএম
মতবিনিময় সভা। ছবি: বাংলানিউজ

মতবিনিময় সভা। ছবি: বাংলানিউজ

সিলেট: ‘ভিটামিন ‘এ’ খাওয়ান, শিশুমৃত্যুর ঝুঁকি কমান’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে সারা দেশের ন্যায় শনিবার (১৪ জুলাই) থেকে সিলেটে শুরু হচ্ছে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন। 

ক্যাম্পেইনে ৬-১১ মাস বয়সী শিশুদের নীল রঙের ও ১২-৫৯ মাস বয়সী শিশুদের লাল রঙের একটি করে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। 

সিলেটে এবার ৫ লাখ ৭ হাজার ২২৮ জন শিশুকে ওই ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। গত বছরও প্রায় একই পরিমাণ শিশুকে ক্যাপসুল খাওয়ানোর লক্ষ্য ছিল। 

বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) সিভিল সার্জন কার্যালয় ও সিটি করপোরেশন আয়োজিত পৃথক মতবিনিময় সভায় এসব তথ্য জানানো হয়। লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে সিলেট জেলায় ৩ লাখ ৯৮ হাজার ৩২২ জন এবং সিটি করপোরেশন এলাকায় ৬২ হাজার ২৫৯ জন শিশু রয়েছে। 

শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এ ক্যাম্পেইন চলবে। সকাল ৯টায় সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে নগরীর বিনোদন কেন্দ্রে ও সাড়ে ৮টায় শহরতলীর খাদিমপাড়ায় সিভিল সার্জন কার্যালয়ের উদ্যোগে কর্মসূচির উদ্বোধন করা হবে।

মতবিনিময়কালে জানানো হয়, সিলেট জেলায় ২ হাজার ৫৬৩ কেন্দ্রে ৫ হাজার ১২৬ জন স্বেচ্ছাসেবী এবং সিটিতে ২৪৭ কেন্দ্রে ৪৯৪ জন স্বেচ্ছাসেবী ভিটামিন ‘এ’  ক্যাপসুল খাওয়ানোর কাজে নিয়োজিত থাকবেন। যাতে কেউ বাদ না পড়ে সেজন্য তারা সব প্রস্তুতি নিয়েছেন।

এরমধ্যে সিলেট নগরে ২৭ ওয়ার্ডে স্থায়ী, অস্থায়ী ও ভ্রাম্যমাণ সব মিলিয়ে ২৪৭ কেন্দ্রে শিশুদের ভিটামিন ‘এ’  প্লাস টিকা খাওয়ানো হবে। এতে ৪৯৪ জন স্বেচ্ছাসেবী টিকা খাওয়াবেন।  

ভিটামিন ‘এ’  সমৃদ্ধ খাওয়ারের প্রতি গুরুত্বারোপ করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, সবাইকে সচেতন করে তুলতে পারলে শিশুরা বাদ পড়বে না এবং ভিটামিন ঘাটতি পুরণ সম্ভব হবে। 

সিভিল সার্জন কার্যালয়ে সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. হিমাংশু লাল রায়। ডা. আহমেদ সিরাজুম মুনির রাহীর পরিচালনায় ক্যাম্পেইন সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন- ডেপুটি সিভিল সার্জন আবুল কালাম আজাদ, ডা. আফজাল ও ডা. মাইনুল আহসান ও সিলেট প্রেসক্লাব সভাপতি ইকরামুল কবির।

এরআগে দুপুরে নগর ভবনে সিটি করপোরেশনের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এজেড নুরুল হক। 

প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও ডা. ধ্রুব পুরকায়স্থের পরিচালনায় সভায় ক্যাম্পেইন নিয়ে আলোচনা করা হয়।

বক্তারা বলেন, ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুলে কোনো পাশ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। তবে কডলিভার ওয়েল এর গন্ধ সহ্য করতে না পারায় কোনো শিশু বমি করতে পারে। এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। তবে ক্যাপসুল খাওয়ানোর পর শিশু বমি করে ফেলে দিলেও দ্বিতীয়বার না খাওয়ানোর জন্য বলা হয়েছে।   

এছাড়া প্রতিটি উপজেলায় শিশু চিকিৎসকদের সমন্বয়ে মনিটরিং সেল থাকবে। অসুস্থ অবস্থায় শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে। 

বাংলাদেশ সময়: ২১৩৫ ঘণ্টা, জুলাই ১২, ২০১৮
এনইউ/এসআরএস 

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa