ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ আশ্বিন ১৪২৭, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩ সফর ১৪৪২

জাতীয়

দুর্নীতি করে কেউ পার পায় না 

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৮
দুর্নীতি করে কেউ পার পায় না 

জাতীয় সংসদ ভবন থেকে: জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ ৫ জনের সাজা হওয়ায় জাতীয় সংসদের অধিবেশনে সংসদ সদস্যরা এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তারা। 

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সংসদ অধিবেশনে তারা বলেছেন, শুধু দুর্নীতি নয়, আন্দোলনের নামে মানুষ হত্যা করেছেন খালেদা জিয়া। তারও বিচার হতে হবে।

দুর্নীতি করে, এতিমের টাকা মেরে খেয়ে কেউ পার পেতে পারে না। এটা এই রায়ের মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয়েছে।  

সংসদে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে আদালতের রায়কে স্বাগত জানিয়ে বক্তব্য দেন- আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলির সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, তরীকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, জাসদের একাংশের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান, জাসদের আরেকাংশের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ)-এর সভাপতি এস এম আবুল কালাম আজাদ ও আওয়ামী লীগের ফজিলাতুন্নেছা বাপ্পি।   

শিরীন আখতার বলেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায়ের মাধ্যমে বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে দেশ বের হয়ে এসেছে। দীর্ঘ ১০ বছর পর হলেও দুর্নীতি মামলায় জনগণের প্রত্যাশিত রায়ই হয়েছে।  এ রায়কে কেন্দ্র করে সারাদেশের মানুষ স্বস্তি প্রকাশ করেছে।

তিনি বলেন, দুর্নীতি খালেদা জিয়া করেছেন, তার ফলও পেয়েছেন। খালেদা জিয়ার পুরো জীবনটাই মিথ্যা ও দুর্নীতি দিয়ে ভরা। নির্বাচন না করে গণতন্ত্র ও সাংবিধানিক ব্যবস্থাকে ধ্বংস করতে খালেদা জিয়া অগ্নিসন্ত্রাস চালিয়ে শত শত মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছেন। শুধু দুর্নীতিই নয়, এসব মানুষ হত্যার জন্যও খালেদা জিয়াকে আইনের মুখোমুখি হতে হবে। দুর্নীতি, হত্যা, অর্থপাচার ও জঙ্গিবাদ চালিয়ে আর পার পাওয়া যাবে না, এটা প্রমাণিত হয়েছে।

নাজমুল হক প্রধান বলেন, খালেদা জিয়া যুদ্ধাপরাধীদের সঙ্গে ক্ষমতার ভাগাভাগি করে বাংলাদেশকে আফগানিস্তানে পরিণত করতে চেয়েছিলেন। দুর্নীতি করে কেউই যে পার পায় না সেটা প্রমাণ হয়েছে। দীর্ঘ ১০ বছর পর এই রায় হলো। সাজা মেনে নিয়ে দেশে নিয়মতান্ত্রিক রাজনীতির পথে ফিরে আসার জন্য বিএনপি নেত্রীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আবারও সন্ত্রাসের পথে হাঁটলে দেশবাসী আর আপনাকে ছাড় দেবে না।  

আবুল কালাম আজাদ বলেন, দুর্নীতির কারণেই আদালত সাজার রায় ঘোষণা করেছেন। ১০ বছর পরে হলেও এতিমের টাকা মেরে খাওয়ায় আদালত খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়েছেন।  এর মাধ্যমে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।  

ফজিলাতুন্নেসা বাপ্পি বলেন, ঐতিহাসিক এই রায় আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার রায়। এতিমের হক মেরে কেউ পার পায় না, তা প্রমাণ হয়েছে। কুখ্যাত খুনী ও দুর্নীতিবাজ তারেক রহমান গুণ্ডাবাহিনী লেলিয়ে দিয়ে লন্ডনে বাংলাদেশের দূতাবাসে হামলা চালিয়েছে। শেখ হাসিনার বাংলাদেশে দুর্নীতিবাজ খালেদা জিয়ার ঠাঁই হবে না।  

বাংলাদেশ সময়: ২০৩৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৮, ২০১৮ 
এসকে/আরআর
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa