ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৬, ২৫ জুন ২০১৯
bangla news

যশোর কারাগারে ২ আসামির ফাঁসি

উত্তম ঘোষ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-১১-১৬ ১:৪০:১৯ পিএম
ফাঁসির সময়ে যশোর কারাগারের নিরাপত্তা জোরদার। ছবি: উত্তম ঘোষ

ফাঁসির সময়ে যশোর কারাগারের নিরাপত্তা জোরদার। ছবি: উত্তম ঘোষ

যশোর: চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার দুর্লভপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা ও ইউনিয়ন পরিষদ(ইউপি)সদস্য মনোয়ার হত্যা মামলায় দুই আসামিকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) দিনগত রাত পৌনে ১২টায় যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে তাদের ফাঁসি কার্যকর করা হয়।

যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার আবু তালেব বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

আসামিরা হলেন, চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার দুর্লভপুর গ্রামের মৃত মুরাদ আলীর ছেলে আব্দুল মকিম (৬০) ও একই গ্রামের মৃত আকছেদ আলীর ছেলে ঝড়ু (৬২)।

ফাঁসি শেষে রাত সোয়া ১২টা ব্রিফিং করেন সিনিয়র জেল সুপার কামাল হোসেন। ছবি: উত্তম ঘোষ রাত সাড়ে ১০টার দিকে কারাগারের সামনে ও আশপাশে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। জেলখানার মূল ফটকের সামনের রাস্তায় যানচলাচল নিয়ন্ত্রণ ছাড়াও প্রশাসনের অনুরোধে আশপাশের দোকানপাট বন্ধ করতে দেখা যায়। পুলিশ ও কারারক্ষী ছাড়াও বিভিন্ন সংস্থার লোকজনের উপস্থিতি দেখা যায়।

যশোর কেন্দ্রীয় কারাগার সূত্র জানায়, দুই আসামির ফাঁসি কার্যকরের লক্ষে চলতি সপ্তাহে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে দুই জল্লাদকে যশোরে এনে মহড়া দেওয়া হয়। রাত ১১টার দিকে দুইটি এ্যাম্বুলেন্স, জেলা প্রশাসনের একজন ম্যাজিস্ট্রেট ও সিভিল সার্জন কারাগারে যান।

ফাঁসি কার্যকরের পর বেরিয়ে যাচ্ছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। ছবি: উত্তম ঘোষ সশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টির চরমপন্থি নেতারা ১৯৯৪ সালের ২৮ জুন চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার দুর্লভপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা ও ইউপি সদস্য মনোয়ার হোসেনকে হত্যা করে। এ ঘটনার পরদিন নিহতের ভাই অহিম উদ্দিন বাদী হয়ে ২১ জনকে আসামি করে আলমডাঙ্গা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ একযুগ পর ২০০৬ সালে ৩ আসামির ফাঁসি, ২ আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ১৬ আসামির বেকসুর খালাস দিয়ে রায় ঘোষণা করেন আদালত। তবে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা উচ্চ আদালতে রিভিউ করলে এক আসামির ফাঁসি মওকুফ করা হয়।

মনোয়ার হত্যায় ২ জনের ফাঁসি কার্যকরের প্রস্তুতি যশোরে

বাংলাদেশ সময়: ১২৩০ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৬, ২০১৭
ইউজি/জেডএম

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2017-11-16 13:40:19