bangla news

রাজধানীর নয়াটোলায় গুলিতে ২ জন হতাহত

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-০৮-১২ ৫:৪৮:৫৫ পিএম

বৃহস্পতিবার রাতে মগবাজারের নয়াটোলা এলাকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুই জন হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। নিহতের নাম মোঃ স্বপন তালুকদার (৩৫)। তিনি ৫২৭/২৬ নয়াটোলা আমবাগানের নূরুল হক তালুকদারের ছেলে।

ঢাকা: বৃহস্পতিবার রাতে মগবাজারের নয়াটোলা এলাকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুই জন হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। নিহতের নাম মোঃ স্বপন তালুকদার (৩৫)। তিনি ৫২৭/২৬ নয়াটোলা আমবাগানের নূরুল হক তালুকদারের ছেলে।


হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, স্বপনকে মাথায়, বুকে ও পাঁজরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর রাত ১১ টা ৪০ মিনিটে তার মৃত্যু ঘটে। পারিবারিক সূত্র দাবি করেছে, স্বপন ইট-বালুর ব্যবসায়ি, ৫০ হাজার টাকা চাঁদা না দেয়ায় চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা তার হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে। কিন্তু রমনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শিবলী নোমান জানান, স্বপন তালুকদার তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী এবং তিনি জিসান গ্রুপের সেকেন্ড ইন কমান্ড। তার বিরুদ্ধে রমনা, তেজগাঁও, খিলগাঁও থানায় প্রায় এক ডজন মামলা রয়েছে বলে ওসি দাবি করেছেন।


একই ঘটনায় কোমরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নূর মোহাম্মদ নূরু (২৭) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। আহত নূর মোহাম্মদ নূরুর পিতার নাম রোস্তম আলী, আমবাগান বাজারগলিতে তার বাসা।


নিহত স্বপন তালুকদারের খালু ৫৪ নম্বর ওয়ার্ড শ্রমিক লীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল কাদের বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডি কে জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮ টায় অসুস্থ্য মায়ের ওষুধ কেনার জন্য আমবাগানস্থ মাদারীপুর ফার্ম্মেসীতে যান। সেখানে আগে থেকেই ওৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসী সেন্টু, আলী হোসেন, জাকিরসহ ৫/৬ জন স্বপনকে লক্ষ্য করে উপর্যুপরি গুলিবর্ষণ করে বীরদর্পে চলে যায়। এতে মাথায়, বুকে ও পাঁজরে তিনটি গুলিবিদ্ধ অবস্থায় স্বপন লুটিয়ে পড়েন। এ সময় সন্ত্রাসীদের এলোপাতারী গুলিতে নূর মোহাম্মদ নূরু নামে অপর একজন পথচারী আহত হন। আশপাশের লোকজন গুলিবিদ্ধ স্বপন ও নূরুকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় স্বপনের মৃত্যু ঘটে।


স্বপনের মা বদরুন্নেসা বেগম জানান, দুই ভাই দুই বোনের মধ্যে স্বপন সবার ছোট। এলাকাতেই তিনি ইট-বালুর ব্যবসা করেন। কিছুদিন যাবত চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা ৫০ হাজার টাকা চাঁদার দাবিতে বার বার স্বপনকে হুমকি দিচ্ছিল। বদরুন্নেসা বেগম বলেন, ৪/৫ মাস আগেও সন্ত্রাসীরা স্বপনকে গুলি করলে তিনি আহত অবস্থায় বেঁচে যান। ওই ব্যাপারে রমনা থানায় সন্ত্রাসীদের নাম-ঠিকানা উল্লেখ করে মামলা দায়ের করা হয়।


রমনা থানা সূত্র জানায়, সন্ত্রাসী জিসান গ্রুপের সেকেন্ড ইন কমান্ড হিসেবে তালিকাভুক্ত অপরাধী স্বপন মাদক ব্যবসা পরিচালনা করতো। মাদক ব্যবসা ও চাঁদাবাজির ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরে স্বপন তালুকদারকে খুন করা হতে পারে।


এ ব্যাপারে রমনা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। আজ শুক্রবার তার মৃতদেহের ময়না তদন্ত করা হবে বলে রমনা থানার ওসি জানিয়েছেন।

এসআরআর/বাংলাদেশের স্থানীয় সময় : রাত ১২:৩৫ ঘন্টা/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2010-08-12 17:48:55