ঢাকা, সোমবার, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

তিন বছরের মধ্যে জাতীয় ব্যয় জিডিপির ২০ শতাংশে নেওয়ার প্রত্যয় অর্থমন্ত্রীর

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-০৬-১৩ ৯:৪০:৩২ পিএম

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত আগামী তিন বছরের মধ্যে জাতীয় ব্যয় মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদনের (জিডিপি) ২০ শতাংশে নিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন।

ঢাকা: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত আগামী তিন বছরের মধ্যে জাতীয় ব্যয় মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদনের (জিডিপি) ২০ শতাংশে নিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন।

আজ সোমবার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে ২০০৯-১০ অর্থবছরের সম্পুরক বাজেটের ওপর দেওয়া বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

অধিবেশনে ২০০৯-১০ সালের সম্পুরক বাজেট প্রস্তাব সর্বসম্মতভাবে পাশ হয়।

স্পিকার অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ অনুপস্থিত থাকায় বেলা ১১টায় ডেপুটি স্পিকার শওকত আলীর সভাপতিত্বে শুরু হয় অধিবেশন। সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সরকারি ব্যয় অত্যন্ত নিম্নমানের (খুবই কম)। তাই গতবার এর পরিমান বাড়িয়েছি। এবারও বেশকিছুটা বাড়ানোর চেষ্টা করছি। এ বছর আশা করছি এ ব্যয় জিডিপির ১৬ দশমিক ৯ শতাংশ পর্যন্ত পৌঁছাবে। আগামী তিন বছরের আরো অন্তত ৩ শতাংশ এগিয়ে যেতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আগামী বাজেটে চিনির ওপর আমদানি শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাবে এরইমধ্যে চিনির দাম বাড়তে শুরু করেছে। এছাড়া চালসহ আরো কয়েকটি নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দামও বাজেটের পর বেড়েছে। এ মানসকিতা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। বাজেট ঘোষণার সঙ্গে দাম বাড়ানোর কোন সম্পর্ক নেই।’

‘বাজেট বাস্তবায়ন কঠিন হবে’ বিরোধীদল ও অর্থনীতিবিদদের এমন মন্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘গত বাজেটে রাজস্ব আদায়ের যে প্রাক্কলন (লক্ষ্যমাত্রা) আমরা ধরেছিলাম তাকেও অনেকে উচ্চাভিলাষী বলেছেন। কিন্তু সেটা আমরা অর্জন করতে পেরেছি।’

এ অর্জনের জন্য করদাতা ও কর প্রশাসন প্রশংসার দাবি রাখে। প্রত্যক্ষ করের হার অন্যান্য বছরের তুলনায় অনেক বেড়েছে। পণ্য ও সেবা সরবরাহকারীরাও মূসকের হার ব্যাপকভাবে বাড়িয়েছেন।’

বাজেটের বাস্তবায়নে সরকারের দুর্বলতা স্বীকার করে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের নতুন নতুন সূত্রের সন্ধান করতে হবে এবং উদ্ভাবনী চিন্তাধারা দিয়ে সেগুলো থেকে রাজস্ব বাড়ানোর উপায় বের করতে হবে।

সম্পূরক বাজেটের ওপর আলোচনায় আজ আরও অংশ নেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী আবদুল মান্নান খান, সংসদ সদস্য মো. ফজলে রাব্বি মিয়া ও অধ্যাপক আলী আশরাফ। তারা প্রত্যেকেই বাজেটের বিভিন্ন ইতিবাচক দিক তুলে ধরে অর্থমন্ত্রীর প্রশংসা করেন।

আগামীকাল বিকাল চারটায় আবারো বসবে সংসদ।

বাংলাদেশ স্থানীয় সময়: ১৮০৬, জুন ১৪, ২০১০
এসএফ/এমএমকে

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2010-06-13 21:40:32