bangla news

শক্তি বাড়ছে সোয়াতের

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১-০৫-২৩ ৮:৪৩:১১ এএম

উন্নত প্রশিক্ষণ, আধুনিক অস্ত্র ও জনবল বৃদ্ধির মাধ্যমে নতুন সাজে সাজছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) বিশেষায়িত ইউনিট সোয়াত। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের অ্যান্টি টেরোরিজম অ্যাসিসট্যান্স (এটিএ) বিভাগ এ ইউনিটকে সার্বিক সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে।

ঢাকা: উন্নত প্রশিক্ষণ, আধুনিক অস্ত্র ও জনবল বৃদ্ধির মাধ্যমে নতুন সাজে সাজছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) বিশেষায়িত ইউনিট সোয়াত। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের অ্যান্টি টেরোরিজম অ্যাসিসট্যান্স (এটিএ) বিভাগ এ ইউনিটকে সার্বিক সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে।

ডিবি সূত্র জানায়, সোয়াতকে আরো কার্যকর, আধুনিক ও শক্তিশালী করার লক্ষে চলতি মাসের ২০ তারিখে ২৪ জনের আরেকটি দলকে প্রশিক্ষণের জন্য আমেরিকার নর্থ ক্যারোলিনার ইউএস ট্রেনিং সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। এ ট্রেনিং সেন্টারে আমেরিকার সেনাবাহিনীসহ নিরাপত্তা সংস্থার কর্মকর্তারা তাদের প্রশিক্ষণ দেবেন।

এ দলে রয়েছেন ১ জন অতিরিক্ত উপ-কমিশনার, ১ জন সহকারী কমিশনার, ৫ জন এসআই, ৩ জন সার্জেন্ট ও ১৪ জন কনস্টেবল। মহানগর পুলিশের বিভিন্ন বিভাগ থেকে বাছাইকৃত চৌকশ পুলিশ কর্মকর্তাদের নিয়ে এ দল সাজানো হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ২০০৮ সালের অক্টোবরে ২ জন সহকারী কমিশনার, ২ জন পরিদর্শক, ৪ জন উপ-পরিদর্শক ও ২ জন সার্জেন্টসহ মোট ২৬ জন চৌকশ পুলিশ সদস্য নিয়ে সন্ত্রাস বিরোধী যাত্রা শুরু করে সোয়াত।

এ দলটিকে প্রশিক্ষণ দেয় এটিএ। একই সাথে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের পক্ষ থেকে তারা সোয়াতকে আধুনিক অস্ত্র, গুলি ও প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম দেয়।

এরপর ২০০৯ সাল থেকে ডিবির অধীনে কার্যক্রম শুরু করে সোয়াত। বিশেষ বিশেষ নিরাপত্তার কাজে এ দলকে ব্যবহার করা হয়।

সোয়াতের কার্যক্রম সম্পর্কে এর নেতৃত্বে থাকা সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) আশিকুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, সোয়াত ডিবির অধীনে কাজ করলেও এর সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষ ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার।

বিভিন্ন নিরাপত্তমূলক কার্যক্রমে ডিএমপি কমিশনারের নির্দেশে সোয়াত অংশ নেয় বলে জানান তিনি।

সোয়াতের সম্প্রসারণ প্রসঙ্গে তিনি জানান, এ ইউনিটের জনবল প্রথম দফায় ২৪ জন বাড়ানো হয়েছে। এদের উন্নত প্রশিক্ষণের জন্য মার্কিন মুলুকে পাঠানো হয়েছে।

একই ইউনিটের জনবল আরো বাড়ানো ও একে আলাদা একটি উইং করারও প্রচেষ্টা আছে বলে ইঙ্গিত দেন তিনি।

একটি সূত্রমতে, সোয়াতের কার্যক্রম, এর অস্ত্র, সরঞ্জামাদির রক্ষণাবেক্ষণ ও ব্যবহার তদারকি করতে সম্প্রতি এটিএর দুই সদস্যর একটি প্রতিনিধি দল ডিএমপি কমিশনারসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করেছেন।

বৈঠকে ওই কর্মকর্তারা সোয়াতের সন্ত্রাসবিরোধী কর্মকা-ে সন্তোষ প্রকাশ করে এর সম্প্রসারণে পর্যাপ্ত সহযোগিতা করার আশ্বাস দেন বলে সূত্র জানায়।

ডিবির একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাংলানিউজকে জানান, নতুন গঠিত দলটি প্রশিক্ষণ শেষ করলে তাদের কার্যক্রম শুরুর আগে এটিএ থেকে প্রায় ১০ কোটি টাকার অত্যাধুনিক অস্ত্র ও সরঞ্জাম দেওয়ার বিষয়টি অনেকটা চূড়ান্ত।

আমেরিকার স্টেট ডিপার্টমেন্টের আনুষ্ঠানিকতা শেষে জুলাইয়ের শেষ নাগাদ এগুলো সোয়াতকে বুঝিয়ে দেওয়া হতে পারে বলে জানান তিনি।

তবে বিশেষায়িত দল হলেও মহানগরীর নিরাপত্তার কাজে ডিবি পুলিশকে সার্বক্ষণিক সহযোগিতা করে যাচ্ছে সোয়াত।

এ ব্যাপারে এসি আশিকুর রহমান বলেন, ‘বিশেষ পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার জন্য সোয়াতে দায়িত্বরত কর্মকর্তারা বসে থাকেন না। নিরাপত্তা বিষয়ক বিভিন্ন কার্যক্রমে তারা ডিবির সাথে নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছেন।’

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেট উপলক্ষে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সেনাবাহিনী, র‌্যাব ও পুলিশের সাথে যৌথভাবে বিভিন্ন মহড়ায় অংশ নেয় সোয়াত।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০০ ঘণ্টা, মে ২৩, ২০১১

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2011-05-23 08:43:11