bangla news

চবি শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ, ভাংচুর ॥ আটক ১৯

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-০৮-০১ ১:৪৭:৪৮ এএম

বর্ধিত বেতন-ফি ও আন্দোলনকারী শিার্থীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা প্রত্যাহারের দাবিতে রোববারও বিক্ষোভ করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

চট্টগ্রাম: বর্ধিত বেতন-ফি ও আন্দোলনকারী শিার্থীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা প্রত্যাহারের দাবিতে রোববারও বিক্ষোভ করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা। বিক্ষোভস্থল ষোলশহর থেকে কমপক্ষে ১৯ শিক্ষার্থীকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন আরিফ, মিজান, মোশাররফ, এনাম, ওয়াহিদুল, মনসুর, রাকিব, মামুন, এরশাদ, মাহফুজুল, মোর্শেদ, জাহিদ, মিলাদ, আমিনুল, নোমান, আনোয়ার, শাহীনুল, শিমুল ও সুমন।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বিকেল ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শহর অভিমুখী একটি শাটল ট্রেন ষোলশহর এলাকায় আটকে দিয়ে রেল ও সড়কপথ অবরোধের চেষ্টা করলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন। এ সময় উভয়পক্ষে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় দুই পুলিশ কনস্টেবলসহ অন্তত ১০ জন আহত হন।

লাঠিচার্জ ও আটকের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা ৫০টিরও বেশি গাড়ি ভাংচুর করেন। প্রায় এক হাজার শিক্ষার্থী এ বিক্ষোভে অংশ নেন।

পাঁচলাইশ থানার ওসি নবজ্যোতি খীসা বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে জানিয়েছেন, যানবাহন ভাংচুর ও পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় আটককৃতদের আসামি করে দুটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।  

উল্লেখ্য, চবি কর্তৃপক্ষ ক্যাম্পাসে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার স্বার্থে ২০০৯ সালের ১৩ মার্চ সব ধরনের রাজনৈতিক কর্মসূচি ও সভা সমাবেশ নিষিদ্ধ করে। এ নিষেধাজ্ঞা অমান্য করেই শিক্ষার্থীরা বেতন ও ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে আন্দোলন শুরু করলে এক ছাত্রকে দু’বছরের জন্য বহিস্কার ও পাঁচজনকে কারণ দর্শাও নোটিশ দেওয়া হয়। এরপর শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ তীব্র হয়ে ওঠে।

সর্বশেষ শনিবার শাটল ট্রেনসহ বিশ্ববিদ্যালয়গামী সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দেন তারা।

বাংলাদেশ সময়: ২১০৫ ঘণ্টা, আগস্ট ১, ২০১০

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2010-08-01 01:47:48