ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২

জাতীয়

বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার খালাসপ্রাপ্ত আসামির মৃত্যু

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭১৪ ঘণ্টা, মার্চ ২৬, ২০১৫
বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার খালাসপ্রাপ্ত আসামির মৃত্যু কিসমত হাশেম

নারায়ণগঞ্জ: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যা মামলার খালাসপ্রাপ্ত আসামি ও ইন্টারপোলের রেড ওয়ারেন্টভুক্ত ক্যাপ্টেন (অব.) কিসমত হাশেম (৬৫) মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) সকালে কানাডাতে তিনি মারা যান।



তিনি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও নগর বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শওকত হাশেম শকুর বড় ভাই।

কাউন্সিলর শওকত হাসেম বাংলানিউজকে জানান, ভোর পৌনে ৬টার দিকে কানাডাতে কিসমত হাশেম মারা গেছেন। সেখানেই তার দাফন সম্পন্ন হবে।

কিসমত হাশেম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যা মামলার খালাসপ্রাপ্ত আসামি। তবে তিনি কেন্দ্রীয় কারাগারে জাতীয় চার নেতাকে হত্যায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ছিলেন।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনের চার নেতা- সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দিন আহমেদ, ক্যাপ্টেন মুনসুর আলী ও এ এইচ এম কামরুজ্জামানকে গ্রেফতার করা হয়। ওই বছরের ৩ নভেম্বর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয় জাতীয় চার নেতাকে।  

২০০৪ সালের অক্টোবরে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত এ হত্যায় তিন সেনা কর্মকর্তা-  রিসালদার মুসলেমউদ্দিন (অব.), দফাদার মারফরত আলী শাহ (বহিস্কৃত) ও দফাদার আব্দুল হাসেম মৃধাকে (বহিস্কৃত) মৃত্যুদণ্ড দেন। সেনাবাহিনী থেকে অব্যাহতি পাওয়া ক্যাপ্টেন  কিসমত হাসেমসহ ১২ কর্মকর্তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয় আদালত। পরে হাইকোর্ট হয়ে মামলাটি আপিল বিভাগে এলে চূড়ান্ত রায়েও কিসমত হাসেমের দণ্ড বহাল থাকে।

প্রসঙ্গত, ২০০০ সালের ১৪ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার রায় ঘোষণার পর ওইদিন দুপুরে নারায়ণগঞ্জ শহরের ডনচেম্বার এলাকায় খালাসপ্রাপ্ত আসামি ক্যাপ্টেন (অব.) কিসমত হাশেমের বাড়ি ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। ২০০৯ সালের নভেম্বরে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলা রায়েও তিনি খালাস পান। তবে ওই সময়েই তার বিরুদ্ধে রেড ওয়ারেন্ট জারি করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৬ ঘণ্টা, মার্চ ২৬, ২০১৫, আপডেট ১৮২৬

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa