bangla news

পটুয়াখালীতে আ’লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত কর্মীর মৃত্যু, এলাকায় উত্তেজনা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১-০২-২৪ ১:১৭:৩২ এএম

পটুয়াখালীর আউলিয়াপুরে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ইফসুফ হাওলাদার (৩৫) চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার ভোর বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল  কলেজ হাসপাতালে  বৃহস্পতিবার ভোর ৪টার দিকে মারা গেছেন।

পটুয়াখালী: পটুয়াখালীর আউলিয়াপুরে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ইফসুফ হাওলাদার (৩৫) চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার ভোর বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল  কলেজ হাসপাতালে  বৃহস্পতিবার ভোর ৪টার দিকে মারা গেছেন।

এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

নিহত ইফসুফ আসন্ন ইউপি নির্বাচনে আউলিয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী শাহ আলম শরীফের কর্মী ছিলেন।

পটুয়াখালী থানার ভঅরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম জানান, লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িতদের আটকের চেষ্টা চলছে। তবে এষনও কোনও মামলা হয়নি।

তবে স্থানীয় আওয়ামী লীগের সূত্রগুলো জানায়, দু’পক্ষই মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে।    

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার রাত  নয়টার দিকে ইউনিয়ন কাউন্সিল চত্বরে আয়োজিত আওয়ামী লীগের এক কর্মীসভায় দু’পক্ষের সংঘর্ষে কমপক্ষে ১৫জন আহত হন। সভার আয়োজন করা হয়েছিল আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়ন নিয়ে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মারামারির সময়ে স্থানীয় সাংসদ গোলাম মাওলা রনি উপস্থিত ছিলেন। সংঘর্ষ তীব্র আকার ধারণ করলে উনি নিজে আত্মরক্ষার জন্য ইউনিয়ন কাউন্সিলের একটি কক্ষে আশ্রয় নেন।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী ইফসুফ মাস্টার বাংলানিউজকে বলেন, ‘এমপি রনির সমর্থক যুবলীগ নেতা ভূট্টোর নেতৃত্বে কর্মীসভায় হামলার ঘটনা ঘটে।’

তিনি জানান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বর্তমান চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবীরের পক্ষে ওই সভায় উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১২০৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১১

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2011-02-24 01:17:32