bangla news

খুনীদের শনাক্তের দাবিতে ইতালিতে ফরহাদ খাঁর মেয়ের সংবাদ সম্মেলন শনিবার

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১-০২-১১ ৯:০৭:৫১ এএম

সাংবাদিক ফরহাদ খাঁ দম্পতির খুনের পেছনে জড়িত প্রকৃত হত্যাকারীদের শনাক্ত ও গ্রেফতারের দাবিতে তাদের একমাত্র মেয়ে ইতালি প্রবাসী আইরিন পারভিন খান শনিবার রোমের একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছেন।

ঢাকা: সাংবাদিক ফরহাদ খাঁ দম্পতির খুনের পেছনে জড়িত প্রকৃত হত্যাকারীদের শনাক্ত ও গ্রেফতারের দাবিতে তাদের একমাত্র মেয়ে ইতালি প্রবাসী আইরিন পারভিন খান শনিবার রোমের একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছেন।

আইরিন খান ইতালি থেকে টেলিফোনে শুক্রবার বাংলানিউজকে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘আমার বাবা-মাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার সঙ্গে জড়িত প্রকৃত খুনীরা এখনো গ্রেপ্তার হয়নি। অদৃশ্য কোনো এক কারণে হত্যার পরিকল্পনাকারীদের শনাক্তও করছে না বাংলাদেশের আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো।’

বাবা-মা হত্যার পেছনে তার অভিমত ও এ সম্পর্কিত তথ্য এতোদিন বিভিন্ন গণমাধ্যমে ব্যক্তিগত যোগাযোগ থেকে দিয়ে আসছিলেন আইরিন খান। শনিবার তিনি আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন করে এসব কথা জানাবেন বলেও বাংলানিউজকে বলেন।

ফরহাদ খাঁর কন্যা আইরিন খান বাংলানিউজকে বলেন, ‘শুধু টাকার জন্য ইয়ন বাবা-মাকে খুন করেছে, এটা মেনে নেওয়া যায় না। কারণ এর পেছনে পারিবারিক ঘটনা রয়েছে। আমার দুই ফুপু কখনোই বাবার ভালো চাননি। হত্যাকাণ্ডের কারণ অনুসন্ধানে তাদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করতে হবে।’

হত্যাকাণ্ডের পেছনে তারা দুই ফুফুর পরিবার মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে রয়েছেন বলেও অভিযোগ আইরিন খানের। দীর্ঘদিনের পারিবারিক রেষারেষি থেকেই বাবার দুই বোন ও তাদের সন্তানরা এর সঙ্গে জড়িত বলে তার অভিযোগ।

তিনি বলেন, ‘পর্তুগাল প্রবাসী আমার ফুপাতো বোন আফরোজা আন্নি ও তার স্বামী শামীম আল মামুন এই হত্যার পেছনে অবশ্যই জড়িত। ইয়নকে তারাই সেখানে পাঠিয়েছে। এরা দুইজন হুকুমের আসামি।’

আইরিন খান আরও বলেন, ‘গ্রেফতার হওয়া ইয়নের খালাত ভাই রাজুকে নিয়ে রহস্য সৃষ্টি করা হচ্ছে। তাকে আটক করেও ছেড়ে দেওয়া হলো, কেন তা বুঝতে পারছি না।’

তিনি বলেন, ‘রাজুকে গ্রেফতার করা ছাড়া এই হত্যাকাণ্ডের আসল রহস্য বের হবে না।’

তিনি বলেন, ‘আমার বাবা-মাকে হত্যার সঙ্গে জড়িতরা পর্তুগালে বাস করে। তারা এখন আমাকে ও আমার স্বামীসহ সন্তানদের নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে।’

ফরহাদ খাঁর হত্যাকারীদের হুমকির মুখে এই পরিবারের এক সদস্য সংবাদকর্মী ফারুক নওয়াজ দেশ ছাড়া হয়েছেন বলেও জানা যায়।  
 
এদিকে পর্তুগাল প্রবাসী বাংলাদেশিদের সূত্রে জানা যায়, শামীম আল মামুন সেখানে বহু বাংলাদেশির সঙ্গে প্রতারণামূলক ব্যবসা করছেন। সেখানে তিনি অবৈধ বাংলাদেশিদের ওয়ার্ক পারমিট বিক্রির নামে অর্থ আদায় করেন। নতুন যাওয়া বাংলাদেশিরাই মূলত শামীম আল মামুনের টার্গেটে পরিণত হন।

বাংলাদেশ সময়: ২০০০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১১

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2011-02-11 09:07:51