bangla news

ছয়টি পৌরসভায় নির্বাচনের নতুন তফসিল ঘোষণা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-১২-২০ ৪:৪৩:১৫ এএম

ছয়টি পৌরসভায় নতুন তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। এগুলো হচ্ছে কক্সবাজার সদর, টেকনাফ, চকরিয়া, মহেশখালী, মাগুরা ও ঝালকাঠি।

ঢাকা: ছয়টি পৌরসভায় নতুন তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। এগুলো হচ্ছে কক্সবাজার সদর, টেকনাফ, চকরিয়া, মহেশখালী, মাগুরা ও ঝালকাঠি।

নতুন সময়সূচি অনুযায়ী, এ পৌরসভাগুলোয় মেয়র ও কাউন্সিলর পদে নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহীদের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৯ ডিসেম্বর। মনোনয়নপত্র বাছাই চলবে ২০১১ সালের ১ ও ২ জানুয়ারি পর্যন্ত। মনোনয়পত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ আগামী ১০ জানুয়ারি এবং নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ২৭ জানুয়ারি।

আদালত প্রথমে গত ২ তারিখে ঘোষিত পৌরসভা নির্বাচনের তফসিলে অন্তর্ভুক্ত ১৫ টি পৌরসভায় সংশ্লিষ্টদের দায়েরকৃত মামলার পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাচনের ওপর স্থগিতাদেশ জারি করে। পরে এসব আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করা হলে, আদালতই আবার এর মধ্যে থেকে ছয়টির ওপরে জারিকৃত স্থগিতাদেশকে স্থগিত করার সিদ্ধান্ত দেন।

এ বিষয়ে আজ নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে নির্বাচন কমিশনার মুহাম্মদ ছহুল হোসাইন বলেন, ‘আদালতের এ পুনঃস্থগিতাদেশের ভিত্তিতে নতুন সময়সূচি নির্ধারণ করা হয়েছে।’

এদিকে আগামী দুই-তিনদিনের মধ্যেই হবিগঞ্জ-১ ও ব্রাক্ষণবাড়িয়া-৩ আসনে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হবে বলে জানা গেছে।

এ দুই আসনের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা মারা যাওয়ায় আসন দু’টি শূন্য হয়ে পড়ে।

এ বিষয়ে ছহুল হোসাইন বলেন, ‘একটি আসন প্রতিনিধি শূন্য হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন আয়োজনের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এছাড়া আগামী ফেব্রুয়ারি নাগাদ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরীক্ষা সংক্রান্ত ব্যস্ততা শুরু হয়ে যাবে। এর পরিপ্রেক্ষিতে খুব দ্রুতই উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’
 
পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থী তার হলফনামায় কোন ভুল তথ্য দিয়ে থাকলে তাকে সমস্যায় পড়তে হবে উল্লেখ করে এই নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘প্রত্যেকের হলফনামায় দেওয়া তথ্য বাছাই করা হচ্ছে। কারো হলফনামায় মিথ্যা তথ্য পাওয়া গেলে তিনি নির্বাচিত হলেও তার মনোনয়নপত্র বাতিলসহ অন্যান্য আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিবাচনের দিন যারা আচরণবিধি ভঙ্গ করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘প্রার্থী- ভোটারসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আচরণবিধি মেনে কাজ করতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘কেউ মনোনয়নপত্র দাখিল করতে যাওয়ার সময় কোন রকম শো-ডাউন করেছে কিংবা তার সঙ্গে পাঁচজনের বেশি লোক ছিলো, এমন প্রমাণ থাকলে তার বিরুদ্ধে আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগ আনা যাবে। অভিযোগ পাওয়া গেলে নির্বাচনী আইনানুযায়ী তার মনোনয়ন বাতিলসহ অন্যান্য শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ছহুল হোসাইন আরো বলেন, ‘আমাদের বিভাগীয় পর্যায়ে সফরের অভিজ্ঞতার আলোকে বলা যায় আসন্ন নির্বাচনে কোনরকম সমস্যা দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা নেই।’

সেনাবাহিনী মোতায়েনসহ অন্যান্য কি ধরনের নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে সেটা নির্বাচনের আগমুহূর্ত ছাড়া প্রকাশ করা যাবে না বলে উল্লেখ করেন তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২০, ২০১০

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2010-12-20 04:43:15