ঢাকা, মঙ্গলবার, ১ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৯ মহররম ১৪৪৬

জাতীয়

সাভারের আকাশে মেঘ, গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে অনিরাপদ যাত্রা

অতিথি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭২৩ ঘণ্টা, জুন ১৩, ২০২৪
সাভারের আকাশে মেঘ, গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে অনিরাপদ যাত্রা

সাভার: ঈদুল আযহা উপলক্ষে নাড়ীর টানে গ্রামে ফিরতে শুরু করেছে কর্মমুখী মানুষ। বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) অফিস শেষে বেশিরভাগ পোশাক শ্রমিকদের শুরু হয়েছে ঈদের ছুটি।

বিকেল হতেই সাভারের বাসস্ট্যান্ডগুলোয় ভিড় করছে মানুষ।

সাভারের আকাশ মেঘাচ্ছন্ন, হচ্ছে বজ্রপাত। গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিও ঝরছে। এ অবস্থায় খারাপ আবহাওয়ার শঙ্কা নিয়ে পিকআপ, ট্রাকে বাড়ির পানে অনিরাপদ যাত্রা করছে অনেকেই।

বিকেল ৪টার দিকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আমিনবাজার, হেমায়েতপুর, সাভার, নবীনগর ও নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের বাইপাইল, শ্রীপুর জিরানীবাজার বাস স্ট্যান্ড ঘুরে দেখা গেছে, বৈরি আবহাওয়া উপেক্ষা করে ট্রাক-পিকআপে হাজার হাজার মানুষ শেকড়ের টানে ঢাকা ছাড়ছে। গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে ট্রাক-পিকআপে ত্রিপল ও পলিথিন মাথায় দিয়ে নিজেদের রক্ষা করছেন তারা। ভাড়া বাঁচাতে বজ্রপাতের ভয়ও জয় করেছে খেটে খাওয়া এসব মানুষ।

নবীনগর চন্দ্রা মহাসড়কের বাইপাইল বাসস্ট্যান্ড থেকে পিকআপে চড়ে উত্তরের জেলায় যাচ্ছেন স্বাধীন মিয়া ও তার সহকর্মীরা। কথা হলে স্বাধীন বাংলানিউজকে বলেন, আমরা গাইবান্ধায় যাবো। বাইপাইল থেকে গাড়ি ছেড়ে রপ্তানি এলাকায় পৌঁছতেই বৃষ্টি শুরু হয়। আমরা পলিথিন মাথায় দিয়ে বৃষ্টির পানি থেকে বাঁচার চেষ্টা করছি।

অপর যাত্রী আল-আমীন বাংলানিউজকে বলেন, বৃষ্টি থেকে হয়তো বাঁচতে পারছি, কিন্তু বজ্রপাত থেকে বাঁচার উপায় নেই। আল্লাহর ওপর ভরসা করেই রওনা করেছি। ঈদ পরিবারের সাথে না করলে ঈদের আনন্দ বুঝতে পারি না। আল্লাহ চাইলেই সুস্থভাবে পৌঁছতে পারবো।

বজ্রপাতের ভয় সম্পর্কে তিনি বলেন, আকাশ ডাকছে, বিদ্যুৎ চমকাচ্ছে। একটু একটু ভয় তো করবেই। তবে আল্লাহর ওপর ভরসা আছে। আমার মা-বাবা গ্রামে অপেক্ষা করছেন। আল্লাহ সুস্থভাবেই পৌঁছুবেন ইন শা আল্লাহ।

পিকআপ চালক আলম বলেন, কম ভাড়ায় অনেকেই পিকআপে গ্রামে ফেরে। আমরা নিতে না চাইলেও জোর করে যাত্রীরা পিকআপে ওঠে। বৃষ্টিতে রাস্তার পাশে দাঁড়াতে চাইলে যাত্রীরাই দাঁড়াতে দিচ্ছে না। পুলিশ সড়কে বাঁধা দিলে কৌশলে যাত্রীদের পিকআপ থেকে নামিয়ে দেই। পরে চেকপোস্ট পার হয়ে আবার যাত্রীরা পিকআপে ওঠে।

যাত্রা নিরাপদ কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ আবহাওয়ায় যাত্রা অবশ্যই অনিরাপদ। তবে যাত্রীদের মানাতে পারি না। তার পরেও নিরাপদ স্থানে দাঁড়ানোর চেষ্টা করবো।

সাভার হাইওয়ে থানার পরিদর্শক (ওসি) আইয়ুব আলী বাংলানিউজকে বলেন, আমরা সব বাস স্ট্যান্ডে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন করেছি। ট্রাক, পিকআপে যাতে যাত্রী না ওঠানো হয়। কিন্তু অসচেতন যাত্রী ও অসাধু চালকরা এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি করছেন। আমরা ট্রাক বা পিকআপে যাত্রী পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করছি।

বাংলাদেশ সময়: ১৭২৩ ঘণ্টা, জুন ১৩, ২০২৪
এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।