ঢাকা, বুধবার, ৫ আষাঢ় ১৪৩১, ১৯ জুন ২০২৪, ১১ জিলহজ ১৪৪৫

জাতীয়

চাঁদপুরে ডাকাতি করতে গিয়ে প্রবাসীর মা ও ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৫৩ ঘণ্টা, মে ২৮, ২০২৪
চাঁদপুরে ডাকাতি করতে গিয়ে প্রবাসীর মা ও ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা নিহত আরাফাত

চাঁদপুর: চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলায় ইউসুফ নামে এক প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতি করতে গিয়ে তার মা ও ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা করেছে একদল ডাকাত।  

সোমবার (২৭ মে) রাতে উপজেলার ২ নম্বর বাকিলা ইউনিয়নের পশ্চিম রাধাসার বকাউল বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন-বকাউল বাড়ির ইউসুফের মা হামিদা বেগম (৭০) ও ছেলে শ্রীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী আরাফাত (১২)।  

এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছে ইউসুফের মেয়ে হালিমা (১৪)। সে শ্রীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

ওই গ্রামের খান বাড়ির বাবলু বলেন, রাত সাড়ে ১২টার দিকে প্রচণ্ড বৃষ্টির মধ্যে ইউসুফের স্ত্রী শাহিন আমাকে ফোন করে জানান যে তাদের বাড়িতে ডাকাত ঢুকেছে, অনেককে কুপিয়েছে। পরে স্থানীয় মসজিদের মাইকে ডাকাত ঢুকেছে বলে প্রচার করা হয়। এরপর আমিসহ গ্রামের কয়েকজন ওই বাড়িতে গিয়ে দেখি ইউসুফের মায়ের মৃতদেহ খাটের ওপর পড়ে আছে। তার ছেলে আরাফাত ও মেয়ে হালিমা রক্তাক্ত অবস্থায় নিচে পড়ে আছে।  

এরপর স্থানীয় মসজিদের ইমাম ও অন্যদের সহযোগিতায় আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে আরাফাত মারা যায়। পরে সেখান থেকে হালিমাকে কুমিল্লা মেডিকেলে নেওয়া হয়। শুনেছি সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে নেওয়া হয়েছে তাকে।  

স্থানীয় সাহাবুদ্দিন জানান, ডাকাতির ঘটনায় ফোন পেয়ে আমরা ওই বাড়িতে যাই। আমার বড় ভাইয়ের স্ত্রী ফাতেমা জানান, তালা ভেঙে তার ঘরেও ডাকাত দল ঢুকেছিল। তিনি অন্য একটি রুমের দরজা আটকে বিভিন্নজনকে ফোন করে বাড়িতে ডাকাতি হচ্ছে বলে জানাচ্ছিলেন। ডাকাতরা কালো বোরকা পরা ছিল।

স্থানীয়রা জানান, ডাকাতির ঘটনা ঘটলেও তিনটি বিল্ডিং রেখে কেন ডাকাত দল টিনের ঘরে ঢুকলো? ডাকাত দল ডাকাতির উদ্দেশে ওই ঘরে ঢুকলেও ঘর থেকে কোনো স্বর্ণালংকার খোয়া যায়নি। এমনকি নিহত হামিদার গলায়ও স্বর্ণের চেইন ও কানে স্বর্ণের দুল আছে।

হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ আবদুর রশিদ জানান, প্রচণ্ড ঝড় বৃষ্টিতে ডাকাতির খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়েছি। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে।

বাংলাদেশ সময়: ১২৫১ ঘণ্টা, মে ২৮, ২০২৪
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।