ঢাকা, রবিবার, ৯ আষাঢ় ১৪৩১, ২৩ জুন ২০২৪, ১৫ জিলহজ ১৪৪৫

জাতীয়

চাপাদহ বিলে চলছে অবৈধ ড্রেজার, হুমকির মুখে কয়েক হাজার একর কৃষি জমি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪৩ ঘণ্টা, মে ২৪, ২০২৪
চাপাদহ বিলে চলছে অবৈধ ড্রেজার, হুমকির মুখে কয়েক হাজার একর কৃষি জমি

ফরিদপুর: ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার সাতৈর ইউনিয়নের চাপাদহ বিল ও সংলগ্ন এলাকায় অবৈধভাবে ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করছে প্রভাবশালীরা। চাপাদহ বিল মৎস্য সমিতির কয়েক নেতার যোগসাজশে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এতে কয়েক হাজার একর কৃষি জমি হুমকির মুখে পড়েছে বলে স্থানীয়দের দাবি।

শুধু সরকারি লিজ নেওয়া বিল থেকেই নয়, ব্যক্তিগত জায়গায় ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলনের কারণে ফুঁসে উঠেছে স্থানীয়রা। ড্রেজার বসাতে বাধা দিলেও কোনো কিছুরই তোয়াক্কা না করে বালু উত্তোলনের সব ব্যবস্থা করা হয়েছে। বিল থেকে কয়েক কোটি টাকার বালু উত্তোলন করে বিক্রির পাঁয়তারা করছে মৎস্যজীবী সমিতির নেতারা এমন অভিযোগ স্থানীয়দের।  

বালু উত্তোলনের কারণে কয়েক হাজার একর জমির ধান, পাটসহ ফসলি জমি হুমকির মুখে পড়বে। এ নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।  

অভিযোগে জানা গেছে, সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকা ৭৬ দশমিক ১০ একর জমি লিজ নিয়ে চাপাদহ বিলে মাছ চাষ করে আসছেন মৎস্যজীবী সমিতির নামে স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিরা। বর্তমানে শুকনো মৌসুমে চাপাদহ বিলের খননের নামে অবৈধভাবে ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। শুধু বিলের জায়গায়ই নয়, ড্রেজার বসানো হয়েছে ব্যক্তিমালিকানা জমিতে। আর তা নিয়েই স্থানীয়দের মাঝে সৃষ্টি হয়েছে ব্যাপক ক্ষোভ।  

স্থানীয়দের অভিযোগ, সরকারের কাছে কোনো অনুমতি না নিয়েই অবৈধভাবে ড্রেজার বসিয়ে নিজেরা লাভবান হওয়ার স্বার্থে বালু উত্তোলন করে বিক্রির পাঁয়তারা চালানো হচ্ছে। তাছাড়া লিজ নেওয়া জমি বাদে কয়েকজনের জমিতে বসানো হয়েছে ড্রেজার মেশিন। এ নিয়ে বাঁধা দিলে তাদের নানা রকম হুমকি ধামকি দেওয়া হচ্ছে।  

চাপাদহ বিলে যাদের জমি রয়েছে তাদের মধ্যে বিশ্বজিৎ, দিনেশ সরকার, মিহির বিশ্বাস, আফসার মোল্লা, সাগর মোল্লা, বায়জিদ অভিযোগ করে বলেন, ব্যক্তিগত জায়গায় ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। এ নিয়ে বাঁধা দিলে তাদের নানাভাবে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। তাছাড়া বালু উত্তোলনের ফলে বিশাল এলাকা নিয়ে ধসে যাবার আশঙ্কা রয়েছে। এমনটি হলে বিলে উৎপাদিত ধান, পাটসহ বিভিন্ন ফসলি জমি নষ্ট হবে। বিলের পাশ দিয়ে চলে যাওয়া রেল সড়কটিও পড়বে হুমকির মুখে।  

তারা জানান, বিলে শতাধিক ব্যক্তির মালিকানা জমি রয়েছে। স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, প্রায় ৭৭ একর জমি সরকারের কাছ থেকে বিলের নামে লিজ নেওয়া হলেও প্রভাবশালীরা বর্ষা মৌসুমে প্রায় ২ হাজার একর জমিতে মাছ চাষ করে থাকেন। যারা জমির মালিক রয়েছেন, তাদের কোনো কিছুই দেওয়া হয় না। চাপাদহ বিল মৎস্য সমিতির নামে স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিরা এটি নিয়ন্ত্রণ করেন বলে অভিযোগ করেন স্থানীয়রা।  

ভুক্তভোগীরা জানান, ব্যক্তিমালিকানা জমি বুঝিয়ে দেওয়াসহ বিল থেকে যাতে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন না করা হয় এবং ফসলি জমি, রেলসড়ক রক্ষার জন্য প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানানো হয়।  

এ ব্যাপারে চাপাদহ বিল মৎস্যজীবী সমিতির সভাপতি আশুতোষ বিশ্বাসের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, আমরা অনুমতি নিয়েই ড্রেজার বসিয়েছি এবং কারও জমিতে ড্রেজার বসাইনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪১ ঘণ্টা, মে ২৪, ২০২৪
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।