ঢাকা, সোমবার, ৩ আষাঢ় ১৪৩১, ১৭ জুন ২০২৪, ০৯ জিলহজ ১৪৪৫

জাতীয়

৪০ বছর পর দেশে ফিরলেন পথ ভুলে বাংলাদেশে আসা নেপালের নাগরিক

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১২২ ঘণ্টা, মে ২৩, ২০২৪
৪০ বছর পর দেশে ফিরলেন পথ ভুলে বাংলাদেশে আসা নেপালের নাগরিক নিজ দেশে ফিরছেন নেপালের নাগরিক বীর বাহাদুর

পঞ্চগড়: পথ ভুলে বাংলাদেশে আসার প্রায় ৪০ বছর পর নিজ দেশে ফিরে গেলেন বীর বাহাদুর রায় (৬০) নামে এক নেপালের নাগরিক।  

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) বিকেলে আইনি প্রক্রিয়া শেষে বাংলাবান্ধা ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে ভারত হয়ে নিজ দেশে ফিরে গেছেন তিনি।

 

বীর বাহাদুর নেপালের গোরখে বাঙ্গিনা এলাকার মৃত অধীর চন্দ্র রায়ের ছেলে।

জানা গেছে, প্রায় ৪০ বছর আগে আসার পর বাংলাদেশের বিভিন্ন হোটেল-রেস্তোরাঁয় প্রায় ১০ বছর কাজ করে এবং ৩০ বছর ধরে বাংলাদেশের বগুড়ার দুপচাঁচিয়া এলাকার অলক বসাকের চাতালে কাজ করে আসছিলেন। এর মাঝে বাংলাদেশি স্থানীয়দের করা একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে তার পরিচয় শনাক্ত হয়। পরিবার ও স্বজনরা বাংলাদেশে যোগাযোগ করলে, উভয় দেশের আইনি প্রক্রিয়া শেষে বৃহস্পতিবার বিকেলে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে তাকে তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে তেঁতুলিয়া উপজেলা প্রশাসন।  

এসময় উপস্থিত ছিলেন - তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফজলে রাব্বি, নেপালের দূতাবাসের উপ-রাষ্ট্রদূত মিস ললিতা সিলওয়াল, দ্বিতীয় সচিব মিস ইয়োজানা বামজান ও সেক্রেটারি অব অ্যাম্বাসেডর রিয়া ছেত্রী, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহবুবুল হাসান, বাংলাবান্ধা ইমিগ্রেশন চেকপোস্টের উপপরিদর্শক (এসআই) ও ইনচার্জ অমৃত অধিকারী, পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা।  

বীর বাহাদুর রায়কে স্বজনদের কাছে হস্তান্তরের সময় এক আবেগঘন মুহূর্তের তৈরি হয়। স্বজনদের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া বাংলাদেশের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন বীর বাহাদুর রায়।

তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফজলে রাব্বি বলেন, প্রায় ৪০ বছর আগে বীর বাহাদুর রায় বাংলাদেশে আসেন। পথ ভুলে নেপালে আর ফেরত যেতে পারেননি। স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের অনুমতি দিলে আমরা সকল ধরনের প্রসেস শেষে বিকেলে তাকে তার স্বজনের কাছে হস্তান্তর করি।  

বাংলাদেশ সময়: ২১১৫ ঘণ্টা, মে ২৩, ২০২৪
এসএএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।