ঢাকা, রবিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৬ মে ২০২৪, ১৭ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

নারী হাজতিকে নির্যাতনে অভিযুক্ত দুই কারারক্ষীকে বদলি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১০৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২৪
নারী হাজতিকে নির্যাতনে অভিযুক্ত দুই কারারক্ষীকে বদলি প্রধান কারারক্ষী আশরাফুল ইসলাম

গাইবান্ধা: গাইবান্ধা জেলা কারাগারের ভেতরে কারারক্ষী ও কয়েদির অনৈতিক সম্পর্ক দেখে ফেলায় এক নারী হাজতিকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত প্রধান কারারক্ষী আশরাফুল ইসলাম ও সাবানা খাতুন নামে দুই কারারক্ষীকে বদলি করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) বিকেলে বদলির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাইবান্ধা জেলা কারাগারের জেল সুপার জাভেদ মেহেদী।

তাদের মধ্যে প্রধান কারারক্ষী আশরাফুল ইসলামকে দিনাজপুর কারাগার এবং নারী কারারক্ষী সাবানা খাতুনকে ঠাঁকুরগাও কারাগারে বদলি করা হয়েছে।

এর আগে গাইবান্ধা জেলা কারাগারের ভেতরে কারাগারের প্রধান কারারক্ষী আশরাফুল ইসলামের সঙ্গে মেঘনা খাতুন নামে এক নারী কয়েদীর অবৈধ কর্মকাণ্ড দেখে ফেলায় মোর্শেদা খাতুন সীমা (৩৪), (হাজতি নম্বর-৫০৮) নামে এক নারী হাজতিকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন করে অভিযুক্ত দুই কারারক্ষীসহ অন্যরা।  

ঘটনার সঙ্গে বিচার চেয়ে মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগ করেন ভুক্তভোগীর মা করিমন নেছা।

নির্যাতনের শিকার ওই নারী পাঁচ বছর ধরে মাদক মামলায় গাইবান্ধা হাজতে রয়েছেন।

অভিযোগে ভুক্তভোগীর মা উল্লেখ করেন, কিছুদিন আগে গাইবান্ধা জেলা কারাগারে কর্মরত প্রধান কারারক্ষী আশরাফুল ইসলাম ও মহিলা কয়েদির (রাইটার) অনৈতিক কর্মকাণ্ড দেখে ফেলেন তার মেয়ে। এতে আশরাফুল ও মহিলা কয়েদি তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এবং এ ঘটনা কাউকে বললে হত্যা করে হৃদরোগে মৃত্যু হয়েছে বলে চালিয়ে দেওয়ার হুমকি দেন।  

ভুক্তভোগী বিষয়টি কাউকে জানাবে না বলার পরও তাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করা হয়।

অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয়, করিমন নেছা একাধিকবার মেয়ের সঙ্গে দেখা করতে গাইবান্ধা কারাগারে এলেও মেয়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে দেওয়া হয়নি। অবশেষে তার মেয়ে গাইবান্ধা আদালতে হাজিরার তারিখে গেলে সাক্ষাৎ পান করিমন নেছা। এরপর মায়ের কাছে কারাগারের ঘটনার বিবরণ দেন ওই হাজতি।

পরে অভিযোগ দায়েরের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৬ এপ্রিল জেলা কারাগারে ঘটনা তদন্তে যান গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিসি) মো. মশিউর রহমান।  

জেল সুপার জাভেদ মেহেদী মোবাইল ফোনে বলেন, অভিযুক্তদের মধ্যে দুই কারারক্ষীকে বদলি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে প্রধান কারারক্ষী আশরাফুল ইসলামকে দিনাজপুর এবং নারী কারারক্ষী সাবানা খাতুনকে ঠাকুরগাঁও কারাগারে বদলি করেছে কারা প্রশাসন।  

এছাড়া জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। প্রাপ্ত রিপোর্ট সাপেক্ষে পরে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১১০০ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২৪
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।