ঢাকা, শনিবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৮ মে ২০২৪, ০৯ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

জলবায়ু পরিবর্তনে অধিক ঝুঁকিতে বাংলাদেশ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬০৭ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৯, ২০২৪
জলবায়ু পরিবর্তনে অধিক ঝুঁকিতে বাংলাদেশ

খুলনা: দীর্ঘমেয়াদি বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনজনিত দুর্যোগে সবচেয়ে ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় বৈশ্বিক সচেতনতা সৃষ্টির পাশাপাশি এ ঝুঁকি মোকাবিলায় সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) দুপুরে খুলনার একটি অভিজাত সম্মেলনকক্ষে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা অ্যাডামস আয়োজিত দক্ষতা উন্নয়ন কর্মশালায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

মাল্টি-অ্যাক্টর পার্টনারশিপ প্রকল্পের মাধ্যমে বাংলাদেশে জলবায়ু সহনশীলতার উন্নয়ন ও জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ক্ষয়-ক্ষতির জাতীয় কৌশল প্রণয়নে সহযোগিতা কার্যক্রম শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় এ দক্ষতা উন্নয়ন কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র অ্যাডভোকেট মেমোরি সুফিয়া রহমান শুনু।

বিশেষ অতিথি ছিলেন জার্মানির জার্মান ওয়াচ প্রতিনিধি মিসেস লরা মারিয়া স্কেফার ও মিস ভেরা তেরাসা কুঞ্জেল।

প্রকল্পের দক্ষতা উন্নয়ন কর্মশালায় সেশন উপস্থাপন করেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) পরিবেশ বিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের সহকারী অধ্যাপক রাবেয়া সুলতানা এবং খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট ডিপার্টমেন্টের সহকারী অধ্যাপক মো. রিয়াদ হুসাইন।

কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন অ্যাডামসের নির্বাহী পরিচালক এস এম আলী আসলাম।  

সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, দেশি-বিদেশি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, প্রাইভেট সেক্টর প্রতিনিধি ও বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিকরা কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন।

প্রকল্পটি স্থানীয় পর্যায়ে অ্যাডামস, জাতীয় পর্যায়ে আইক্যাড ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে জার্মান ওয়াচ বাস্তবায়ন করছে। কর্মশালার উদ্দেশ্য হলো জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব এবং এর ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীদের জ্ঞান ও দক্ষতা বাড়ানো।

কর্মশালায় জলবায়ু সক্রান্ত পরিবর্তনের প্রভাব এবং এর ক্ষয়ক্ষতি, ক্ষয়-ক্ষতির অর্থনৈতিক ও অর্থনৈতিক বিষয়াদি, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক নীতিমালা, ক্ষয়ক্ষতি মোকাবিলায় আন্তর্জাতিক পদক্ষেপসমূহ এবং বাংলাদেশে ক্ষয়ক্ষতির জাতীয় নীতিমালা প্রণয়ন বিষয়সমূহ বিশদভাবে আলোচনা করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৯, ২০২৪
এমআরএম/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।