ঢাকা, শনিবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৮ মে ২০২৪, ০৯ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

বাজেটে তামাকজাত পণ্যের কর ও দাম বাড়ানোর দাবি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪০২ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৮, ২০২৪
বাজেটে তামাকজাত পণ্যের কর ও দাম বাড়ানোর দাবি টাঙ্গাইল জেলা বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের মানববন্ধন। ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: জনস্বাস্থ্য রক্ষায় আসন্ন ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেটে সব ধরনের তামাকজাত পণ্যের কর ও দাম বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন টাঙ্গাইল জেলার বিড়ি শ্রমিকেরা।

বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে টাঙ্গাইল বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়ন আয়োজিত এক মানববন্ধনে তারা এ দাবি জানান।

এতে সহযোগিতা করে ডেভেলপমেন্ট অরগানাইজেশন অব দ্য রুরাল পুওর (ডরপ)।

মানববন্ধনে টাঙ্গাইল বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম বলেন, তামাকজাত পণ্য উৎপাদনে জড়িত থাকায় প্রতিনিয়তই আমরা শ্বাসকষ্ট, হৃদরোগ, মানসিক অবসাদের মতো স্বাস্থ্য সমস্যার সম্মুখীন হই। এ প্রক্রিয়ায় আমরা নিতান্তই জীবিকার তাগিদে যুক্ত হয়েছি। তবে আমরা চাই তামাক পণ্যের ওপর উচ্চ কর আরোপ করা হোক এবং দাম বাড়ানো হোক। পাশাপাশি আমাদের বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করার সুযোগ দেওয়া হোক।

তিনি আরও বলেন, তরুণদের ধূমপান থেকে বিরত রাখতে কম দামি বিড়ি ও সিগারেটের কর-মূল্য ব্যাপকভাবে বাড়াতে হবে, যাতে এগুলো আর সুলভ না থাকে।

টাঙ্গাইল বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের কোষাধ্যক্ষ জয়মনি বেগম বলেন, যেহেতু বারবার কর বাড়িয়েও নিম্ন স্তরের সিগারেট ও বিড়ির দাম সুলভ রয়ে যাচ্ছে, তাই নীতিনির্ধারকদের উচিত হবে সুনির্দিষ্ট ও কার্যকরী কর আরোপ করা। নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্য সুরক্ষায় কর বাড়ানোর মাধ্যমে তামাকপণ্যের দাম বাড়ান, যাতে তা জনগণের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে যায়।

এ সময় বক্তারা প্রতি প্যাকেট ধোঁয়াযুক্ত তামাকপণ্যের দাম সর্বনিম্ন ৬০ টাকা করার দাবি জানান, যাতে নিম্নআয়ের মানুষ বিড়ি বা নিম্ন শ্রেণীর সিগারেট সেবনে নিরুৎসাহিত হয়। পাশাপাশি বিড়ি কারখানাগুলোতে শিশুশ্রম বন্ধ, স্বাস্থ্যঝুঁকি নিরসনে বরাদ্দ বাড়ানো, অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধে উদ্যোগ নেওয়া, মজুরি বাড়ানো ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা করেন।

মানববন্ধনে ডরপের প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর রুবিনা ইসলাম, টাঙ্গাইল বিড়ি শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল হক, প্রচার সম্পাদক একাব্বরসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৫৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৮, ২০২৪
এসসি/আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।